কক্সবাজার, বুধবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২১

আজ সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৬.৬ ডিগ্রি, তীব্র শৈত্য প্রবাহ আসছে

ডিসেম্বর মাসের শেষার্ধে এসে দেশে শৈত্যপ্রবাহ বইতে শুরু করেছে। পাল্লা দিয়ে কমছে তাপমাত্রা, বাড়ছে শীতের প্রকোপ। গতকালের তুলনায় ঢাকার তাপমাত্রা আজ তিন ডিগ্রি কমে গেছে। এছাড়া, দিনের তাপমাত্রা এক থেকে দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। আজ ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ১৪ দশমিক ৬০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

শনিবার (১৯ ডিসেম্বর) সকাল সাতটা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত সময়ে ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার পূর্বাভাসে আবহাওয়া অধিদপ্তর আরো জানিয়েছে, আকাশ অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা থাকতে পারে। আবহাওয়া শুষ্ক থাকবে। এছাড়া, পশ্চিম/উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৬ থেকে ১২ কিলোমিটার বেগে বাতাস প্রবাহিত হতে পারে।

আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ জানিয়েছেন, আজকে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে কুড়িগ্রামের রাজারহাটে ৬ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা তেঁতুলিয়ার চলতি শীত মৌসুমে এখন পর্যন্ত সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড। এছাড়া, আগামীকাল থেকে দেশের মধ্যভাগে বিশেষ করে দক্ষিণাঞ্চলের তাপমাত্রা কমবে।

এ মাসের শেষের দিকে অথবা জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে দেশের কোন কোন জায়গায় তাপমাত্রা ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের এর নিচে নেমে যেতে পারে। তখন তীব্র শৈত্যপ্রবাহ দেখা দিতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেন এই আবহাওয়াবিদ।

এদিকে শুক্রবার (১৮ ডিসেম্বর) রাতের পূর্বাভাসে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, দেশের উত্তরাঞ্চলে যে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে তা আগামী দুদিন সেটা অব্যহত থাকবে। তবে, পরের পাঁচ দিনে আবহাওয়ার সামান্য পরিবর্তন হতে পারে। এছাড়া, সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমে যেতে পারে।

উল্লেখ্য, টানা তিন দিন তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস বা তার কম থাকলে শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে বলে ধরা হয়। থার্মোমিটারের পারদ ৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে হলে তাকে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বলে। তাপমাত্রা ৬ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে হলে তাকে বলা হয় মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। আর পারদ ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে গেলে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ চলছে বলে ধরা হয়। কালের কন্ঠ

পাঠকের মতামত: