কক্সবাজার, শনিবার, ২১ নভেম্বর ২০২০

ইউএনও’র ওপর হামলায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার আসাদুলের

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানমের ওপর হামলায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে যুবলীগের সদস্য আসাদুল।

কালিগঞ্জ থেকে পুলিশ ও র‍্যাবের যৌথ অভিযানে আসাদুলকে ধরা হয়। তার বাড়ি ঘোড়াঘাটের ওসমানপুরে।

কি কারণে ঘটলো এমন ভয়াবহ হামলা, সেই তথ্য নিশ্চিত হবার চেষ্টা চালাচ্ছে তদন্তের দায়িত্বে সংস্থা গুলো। তবে স্থানীয়ভাবে নেশাগ্রস্ত হিসেবে পরিচিত আসাদুলকে আগেও নিজ থেকে জেলে দিয়েছে পরিবার।

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানমের ওপর হামলার ঘটনার ২৪ ঘন্টা পেরোনোর  আগেই সন্দেহভাজন কয়েকজনকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার রাতে ইউএনও ওয়াহিদা খানমের সরকারি বাসায় ঢুকে তার ওপর হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। প্রথমে রংপুরের একটি বেসরকারি মেডিকেলে নেয়া হলেও, পরে তাকে ঢাকায় এনে ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হামলার শিকার হন তার বাবাও। তিনি রংপুরেই চিকিৎসাধীন।

নৃশংস হামলার শিকার হয়ে গুরুতর জখম দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানমের সফল অস্ত্রোপচারের পর জ্ঞান ফিরলেও শঙ্কামুক্ত নন। চিকিৎসক জানিয়েছেন, তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে শুরু হয় অপারেশন। অস্ত্রোপচার সফল হলেও ওয়াহিদা খানমের শরীরের ডানপাশ এখনো অবশ।

পাঠকের মতামত: