কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২

ঈদে কক্সবাজারের অর্ধেক হোটেলে আগাম বুকিং

ঈদের ছুটিতে কক্সবাজারে বিপুল সংখ্যক পর্যটক সমাগম ঘটবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা। এ জন্য হোটেল-মোটেল ও রিসোর্টগুলো ধোয়া-মোছাসহ পর্যটক বরণে যাবতীয় প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে হোটেল-মোটেলের কক্ষ ৫০ শতাংশের বেশি বুকিং হয়ে গেছে। রমজান মাসে পর্যটক শূন্যতার ক্ষতি পুষিয়ে যাবে বলে আশা করছেন তারা।

কক্সবাজার সৈকতের কিটকট ব্যবসায়ী হামিদ হোসেন বলেন, ‘এ বছর ঈদে আশা করছি ব্যবসা ভালো হবে। অভিজ্ঞতা থেকে বলা যায়, এবারের ছুটিতে লাখো পর্যটক কক্সবাজার ভ্রমণে আসবে।’

সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্টের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী রুবেল বলেন, ‘রমজানে পর্যটক না থাকায় বেচাকেনা হয়নি। তবে ঈদ উপলক্ষ্যে নতুন পণ্য তুলেছি। সব রকমের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

কক্সবাজার কলাতলী হোটেল মোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মহিম খান জানান, ‘এখন পর্যটনের শেষ মৌসুম। তার ওপর পবিত্র রমজান মাস হওয়ায় গত মাস দুয়েক ধরে পর্যটকশূন্য হয়ে পড়েছে কক্সবাজার। এতে কক্সবাজারে গড়ে ওঠা পাঁচ শতাধিক হোটেল মোটেলের মালিকরা ক্ষতির মুখে পড়েন।

তিনি বলেন, ঈদের ছুটিতে বিপুল পর্যটক কক্সবাজার ভ্রমণে আসবেন বলে আশা করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৬০ শতাংশ হোটেল-মোটেলের কক্ষ বুকিং হয়ে গেছে। হোটেলগুলোতে বুকিং আরও বাড়তে পারে। তাই কক্সবাজারে আগত পর্যটকবরণে হোটেল মালিকরা যাবতীয় প্রস্তুতি নিয়েছেন।’

কক্সবাজার টুরিস্ট পুলিশের পুলিশ সুপার জিল্লুর রহমান জানান, ‘রমজানে উপস্থিতি কম হলেও ঈদের ছুটিতে পর্যটকের সমাগম ঘটবে। তাই পর্যটকের সেবা নিশ্চিত করতে এবং শৃঙ্খলা রক্ষায় আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়েছে ট্যুরিস্ট পুলিশ।’

পাঠকের মতামত: