কক্সবাজার, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

উখিয়ায় আদালতের নির্দেশে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করলো বনবিভাগ

শাহেদ হোছাইন মুবিন :

কক্সবাজারের উখিয়ায় বনবিভাগের জমি দখল করে অবৈধভাবে দালান নির্মাণ করে মোহাম্মদ আলী নামের এক ব্যক্তি। আর এই অবৈধভাবে নির্মাণ করা স্থাপনা আদালতের নির্দেশে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেছে বনবিভাগ।

শনিবার(২৩ সেপ্টেম্বর২০২৩ইং) দুপুরে উখিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা গাজী শফিউল আলমের নেতৃত্বে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

জানা যায়, ২০১৭ সালে তৎকালীন উখিয়া সদর বিট কর্মকর্তা আফসার বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করেন অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের বিরুদ্ধে। ঐ মামলাটি আমলে নিয়ে বিজ্ঞ আদালত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের নির্দেশ প্রদান করে। আদালতের নির্দেশে ৬টি দোকানের মধ্যে একটিমাত্র দোকান উচ্ছেদ করে নির্দেশ অমান্য করে মোহাম্মদ আলী। বিষয়টি পুনরায় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আসাদ উদ্দিন মো. আসিফ অভিযুক্তদের নির্দেশ দেন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের। বার বার আদালতের নির্দেশ অমান্য করে স্থাপনা সরিয়ে না নেওয়ায় অভিযুক্ত মোহাম্মদ আলীর জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করেন। সাথে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে তদন্ত প্রতিবেদন জমার নির্দেশ প্রদানের দায়িত্ব দেন কক্সবাজার দক্ষিণ বিভাগীয় বন কর্মকর্তা কে।

উখিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা গাজী শফিউল আলম বলেন,” ২০১৭ সালে উখিয়া রেঞ্জের সদর বিটের হাজমপাড়া এলাকায় অবৈধভাবে নির্মাণ করা স্থাপনা উচ্ছেদের জন্য নির্দেশ প্রদান করে বিজ্ঞ আদালত। আদালতের নির্দেশে শনিবার ৬টি সেমিপাকা স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। যার মামলা নং-৭৫/২০১৭।”

তিনি আরও জানান, সরকারি বনভূমি উদ্ধারে বনবিভাগ সচেষ্ট রয়েছে। উখিয়া রেঞ্জে নতুন করে কোনো দালান নির্মাণ কিংবা বনভূমি দখলের সুযোগ নেই। দখলে অভিযুক্ত এলাকাগুলোতে এখন থেকে কঠিন নজরদারি রেখে নিয়মিত উচ্ছেদ অভিযান চালানো হচ্ছে। দখলদার যে-ই হোক না কেন, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আইনের আওতায় আসবে তাদের সহযোগীও।

উচ্ছেদ অভিযানে দোছড়ি বিট কর্মকর্তা রাকিব হোসেন, উখিয়া সদর বিট কর্মকর্তা মো. সাজ্জাদুজ্জামান, থাইংখালী বিট কর্মকর্তা বিকাশ দাশ সহ বনবিভাগের স্টাফগণ উপস্থিত ছিলেন।

পাঠকের মতামত: