কক্সবাজার, শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

ভূমি প্রশাসনে অভিযোগ..

উখিয়ার টিএন্ডটিতে পাহাড় কেটে  শ্রেণি পরিবর্তন

উখিয়া বার্তা রিপোর্ট::
উখিয়ার দক্ষিণ টিএন্ডটি ধইল্ল্যাঘোনা এলাকায় কতিপয় চিহ্নিত ভূমিদুস্য নির্বিচারে পাহাড় কেটে শ্রেণি পরিবর্তন করছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও বনবিভাগীয় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিধি নিষেধ উপেক্ষা করে পাহাড় কর্তনের ফলে বসতবাড়ি ঝুঁকিপূর্ণ ও চলাচলের রাস্তা কাদামাটিতে একাকার হয়ে পড়ায় জন চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।
এ ঘটনায় বিক্ষুদ্ধ গ্রামবাসী উপজেলা ভূমি কর্মকর্তার বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন।
গতকাল সোমবার ঘটনাস্থল ধইল্ল্যাঘোনা এলাকা ঘুরে ভুক্তভোগীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, পাহাড় কর্তনের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার ফলে ভারী বর্ষণে প্রায় বেশ কিছু সংখ্যক বাড়ীঘর ঝুঁকির মুখে পড়েছে। পাশাপাশি পাহাড় কাটা মাটি ভারী বর্ষণে জনচলাচলের রাস্তায় একাকার হয়ে চলাচলে ব্যাহত হচ্ছে মারাত্মক ভাবে।
উপজেলা ভূমি অফিসে অভিযোগকারী মৃত সিরাজুল কবিরের স্ত্রী গোলবাহার বেগম, মৃত মোঃ হোছনের ছেলে আলী হোছন, মৌলভী সাইফুল ইসলাম, আমির হোছন, জাহাঙ্গীর আলম, রুস্তম আলী সহ ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামবাসী জানান, একই এলাকার দেলোয়ার হোসেন ও নেজাম উদ্দিন প্রভাব বিস্তার করে ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে রাত দিন পাহাড় কেটে মাটি পাচার করছে। অব্যাহত পাহাড় কর্তনের ফলে ভারী বর্ষণে এলাকার গরীব হতদরিদ্র পরিবারের আবাসস্থল একমাত্র বসতবাড়িগুলো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে।
এ ব্যাপারে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি পাহাড় কাটা থেকে বিরত থাকার জন্য অভিযুক্তদের নিদের্শ দিলেও তারা মানছে না। এব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে উখিয়া বনরেঞ্জ কর্মকর্তা কাজী তারিকুর রহমান জানান, এ ধরনের একটি অভিযোগ পাওয়ার পর তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে আশ্বস্ত করেন।
উখিয়া সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট আমিমুল এহসান খান জানান, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পাঠকের মতামত: