কক্সবাজার, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪

উখিয়ায় বোরো আবাদে ব্যস্ত কৃষকরা

মোহাম্মদ ইব্রাহিম মোস্তফা, উখিয়া বার্তা::
কক্সবাজারের উখিয়ায় বোরো ধান আবাদে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকেরা। চলিত মৌসুমে কৃষক ধানের দাম ভালো পাওয়ায় আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে সংশিষ্ট কৃষি সম্পাসারণ বিভাগ মনে করছে। বর্তমানে সারা দেশের ন্যায় উখিয়া উপজেলায় চলছে বোরো আবাদের মৌসুম। আর বোরো আবাদের কারণে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষকরা। মাঘ মাসে কুয়াশা ঢাকা শীতের সকাল হিমেল হাওয়া উপেক্ষা করে কৃষকরা বোরো ধানের চারা রোপণের ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। বিস্তীর্ণ মাঠ জুড়ে বোরো আবাদের ধুম চলছে।
উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় ৬ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো ধান আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।
সরেজমিনে দেখা গেছে, ভোরের আলো ফুটতেই কোমর বেঁধে ফসলের মাঠে নেমে পরেছেন কৃষকরা। যদিও গত কয়েক দিন থেকে শীতের তীব্রতা কিছুটা কম রয়েছে এ উপজেলায়। বীজতলায় ধানের চারা পরিচর্যার পাশাপাশি জমি চাষবাদের কাজ চলছে পুরোদমে। বিস্তীর্ণ ফসলের মাঠে ধানের কচি চারার সবুজ গালিচা, কোথাও গভীর নলকুপ থেকে চলছে পানি সেচ, ট্রাক্টর, পাওয়ার টিলার দিয়ে চলছে জমি চাষের কাজ।
উপজেলার সিকদার সহ বিভিন্ন এলাকায় কৃষক নদী থেকে নালা পদ্ধতিতে পানি সংগ্রহ করেছেন। আবার বোরো ধানের রোপণের জন্য বীজতলা থেকে তোলা হচ্ছে ধানের চারা। কৃষকের ব্যস্ততায় শীত যেন তাদেরকে স্পর্শ করছে না। শরীরে রয়েছে হালকা পোশাক, মাথায় গরম কাপড়। সব মিলিয়ে ফুরফুরে মেজাজ বোরো আবাদে ব্যস্ত কৃষক। কিছু কিছু মাঠে জমির রোপণে কাজ সম্পন্ন হয়েছে।
উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের কৃষক জহির বলেন, গত বছরের তুলনায় চলিত বছরে ধানের দাম বেশি হওয়ায় বেশি ভাগ কৃষকরা বোরো চাষে ঝুঁকে পড়েছে। এই জন্য ধারণা করা হচ্ছে লক্ষ্যমাত্রা চেয়ে বেশি বোরো ধান আাবাদ করছে কৃষকরা।
উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের কৃষক গফুর মিয়া বলেন, আমি এ বছর বোরো মৌসুমে ১০ কাটা জমিতে ধান চাষ করেছি। আমাদের এ উপজেলায় ধান ভালো হলে প্রতি কাটায় ৮ থেকে ১০ মণ ধান পাওয়া যাবে।
উখিয়া উপজেলা কৃষি অফিসার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) জাকিরুল ইসলাম বলেন, চলতি মৌসুমে ৬ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে৷ তিনি আরো বলেন, উপজেলার উপ-সহকারী কৃষি অফিসারগণ প্রতিনিয়ত কৃষকদের খোঁজ খবর নিচ্ছেন।

পাঠকের মতামত: