কক্সবাজার, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১

উখিয়ায় স্কুলের পাহাড় কেটে মাটি বিক্রয়

জেলা প্রশাসন ও বনবিভাগের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে উখিয়ার বালুখালী লতিফুন্নেছা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় লাগোয়া পাহাড় কেটে পুকুর ভরাট করছে সংঘবদ্ধ সিন্ডিকেট। পশ্চিম বালুখালী এমএসএফ হাসপাতালের সামনে পুকুরটি এনজিও’র জন্য ভরাট করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

সূত্রে প্রকাশ, দেশের প্রচলিত আইনে পাহাড় কাটা নিষেধ হওয়া সত্বেও রোহিঙ্গাদের মানবতার দোহাই তুলে ইতোপূর্বে অন্তত অর্ধশত পাহাড় কেটে সমতল করা হয়েছে উখিয়া টেকনাফে। বিশেষ করে কিছু সংখ্যক এনজিও প্রচলিত আইনকে তোয়াক্কা না করে তাদের বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণকল্পে কতিপয় অসৎ ক্যাম্প ইনচার্জকে ম্যানেজ করে এখনও পাহাড়টিলা সমতল করে চলেছে। এ কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে রোহিঙ্গা শ্রমিকদের। বালুখালী লতিফুন্নেছা স্কুলের পাহাড়টি বিদ্যালয় বন্ধ থাকার সুযোগে রাতের বেলায় কেটে ডাম্পারভর্তি মাটি নিয়ে যাচ্ছে। রোহিঙ্গা ক্যাম্প ত্রাণ ক্রয়কারী সিন্ডিকেট সদস্য ছৈয়দ নুরের নেতৃত্বে দু’টি ডাম্পারভর্তি করে প্রতিরাতে সমানতালে পাহাড় কেটে মাটি সরবরাহ করছে বলে জানা গেছে। রাত ১১টার পর থেকে ভোর পর্যন্ত চলে এ অবৈধ পাহাড় কর্তন কাজ।

এদিকে জালিয়াপালং পাইন্যাশিয়ায় মাটি ভর্তি একটি ডাম্পার জব্দ করেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। বুধবার সকালে অভিযান চালিয়ে ডাম্পারটি জব্দ করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে

স্থানীয়রা জানিয়েছে, দীর্ঘদিন দক্ষিণ পাইন্যাশিয়া বনবিভাগের পাহাড় কেটে বিভিন্ন স্থানে মাটি বিক্রি করে আসছিল ছাত্রদল নেতা আরাফাতের নেতৃত্বে একটি সিন্ডিকেট। প্রতিদিন ২০ শ্রমিক ও ৫-৬টি ডাম্পার মাটি নেয়া কাজে নিয়োজিত ছিল।জনকণ্ঠ

পাঠকের মতামত: