কক্সবাজার, বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১

ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টার মাধ্যমে উন্নত বাংলাদেশ গড়া সম্ভব

দেশে মুসলমান, হিন্দু, বৌদ্ধসহ সব ধর্ম পালনে সরকার সমান সুযোগ দিচ্ছে উল্লেখ করে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখছে আমরা। মুসলমান, হিন্দু, বৌদ্ধসহ সব ধর্মের মানুষের অংশগ্রহণে ও ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টার মাধ্যমে এই উন্নত বাংলাদেশ গড়া সম্ভব।

শনিবার (০৫ ফেব্রুয়ারি) চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে চট্টগ্রাম বিভাগের খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তেব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নুরুল ইসলাম, অতিরিক্ত সচিব মো. আ. হামিদ জমাদ্দার, ইসলামী ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক ফারুক আহমেদ, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাসোসিয়েশনের বিভাগীয় সভাপতি এ কে এম এহসানুল হায়দর চৌধুরী বাবুল, খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি উইলিয়াম প্রলয় সমদ্দার, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি উত্তম শর্মা, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি সুপ্ত ভূষণ বড়ুয়া উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ১৯৮৩ সালে খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট বিষয়ক অধ্যাদেশ জারির ২৬ বছর পর ৫ নভেম্বর ২০০৯ সালে খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করা হয়। সরকার ২০১১ খ্রিস্টাব্দের জুলাই মাসে ট্রাস্টের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ৫ কোটি টাকার এনডাওমেন্ট তহবিল ছাড়পূর্বক ট্রাস্টের নামে ১টি স্থায়ী আমানত করেছে।

ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠার পর গত ১০ বছরে ট্রাস্ট তহবিলের মুনাফার টাকা থেকে দেশের ৪১৭টি চার্চকে ২ কোটি ১৬ লাখ ২৩ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করা হয়েছে।

তিনি বলেন, পালক-পুরোহিতদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য ৬টি এবং ছাত্র-যুবকদের নীতি নৈতিকতা বিষয়ক ১৪টি প্রশিক্ষণ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

এতে ৪৪৬ জন পালক-পুরোহিত এবং ৯৬৬ জন ছাত্র-যুবক অংশগ্রহণ করেছে।
এছাড়াও গত ২০১৮, ২০১৯ ও ২০২০ সালের শুভ বড়দিন উদযাপন উপলক্ষে সমগ্র বাংলাদেশে গীর্জা/চার্চ/উপাসনালয়গুলোর জন্য খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট এর অনুকূলে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে ২ কোটি ৫০ লাখ টাকার বিশেষ অনুদান প্রদান করা হয়েছে।

পাঠকের মতামত: