কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২১

কক্সবাজারে করোনা পজিটিভ রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ীর পথে

কক্সবাজারের একমাত্র করোনা জীবাণু আক্রান্তরোগী মুসলিমা খাতুন সুস্থ হয়ে একন বাড়ির পথে। আজ বেলা ২ টার দিকে তাকে ঢাকার কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়। বিষয়টি রোগীর পারিবারিক সূত্র নিশ্চিত করেছেন।

কক্সবাজারে প্রথম করোনা পজিটিভ রোগীর নাম মুসলিমা খাতুন(৭৮)। গত ১৮ মার্চ কক্সবাজার সদর হাসপাতালে অসুস্থ অবস্থায় ভর্তি করানো হয়। গত ২২ মার্চ চিকিৎসকেরা মহিলাটির তার শরীরের স্যাম্পল সংগ্রহ করে করোনা ভাইরাস টেস্টের জন্য ঢাকার আইইডিসিআর ল্যাবে পাঠিয়ে দেন। গত ২৪ মার্চ টেস্ট রিপোর্ট আসলে সেখানে তার শরীরে করোনা ভাইরাস জীবাণু ধরা পড়ে। এনিয়ে পুরো জেলায় আতংক ছড়িয়ে পরে।

পরে মহিলাটির অবস্থান করা কক্সবাজার শহরের দক্ষিণ টেকপাড়া ও সিকদার মহলের পাশ্ববর্তী পল্লবী লেইনের একটি গলি এবং সেখানে ২ টি বাড়ি লকডাউন করে দেওয়া হয়। এছাড়াও মুসলিমা খাতুন অবস্থান করেছিলেন নিশ্চিত হয়ে চট্টগ্রাম শহরের ২ টি বাড়ি ও মহিলার খুটাখালী দক্ষিণ পাড়ার বাড়িটিও লকডাউন করে দেওয়া হয়। হোম কোয়ারান্টাইনে পাঠিয়ে দেওয়া হয়-কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ৮ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ৬ জন নার্স, ৩ জন ক্লিনারকে।

মহিলার সন্তান, স্বজন ও তাদের সংস্পর্শে আসা প্রায় একশ’ লোককে হোম কোয়ারান্টাইনে চলে যেতে হয়।
তাকে চিকিৎসা সেবা দেওয়া কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ৩ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের শরীরের স্যাম্পল টেস্ট করে তাদের শরীরে কোন করোনা ভাইরাস জীবাণু ধরা পড়েনি।

মুসলিমা খাতুনের সন্তান ও হোম কোয়ারান্টাইনে থাকা এডভোকেট হেফাজতুর রহমান ও তার সহধর্মিণী নার্গিস জান্নাতের শরীরের স্যাম্পল টেস্ট করে গত ৩০ মার্চ তাদের শরীরেও কোন করোনা ভাইরাস জীবাণু পাওয়া যায়নি।

পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকাস্থ কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে ৩১ মার্চ দ্বিতীয় দফায় করোনা ভাইরাস টেস্ট করলে মুসলিমা খাতুনের দেহে করোনা ভাইরাস জীবাণু ধরা পড়েনি।

কক্সবাজারের সিভিল সার্জন ডা: মো: মাহাবুবুর রহমান এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

পাঠকের মতামত: