কক্সবাজার, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪

কক্সবাজারে পানিতে ডুবে একদিনে ৪ মৃত্যু

কক্সবাজারে পানিতে ডুবে একদিনে চার শিশুর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। যার মধ্যে পুকুরে ডুবে খালা-ভাগ্নির মৃত্যু, মসজিদের পুকুরে নেমে স্কুলছাত্রের মৃত্যু এবং সাগরে ঢেউয়ের কবল থেকে বড় ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে মৃত্যু হয় ছোট ভাইয়ের।

শনিবার (০১ জুন) কক্সবাজারের পেকুয়া, মহেশখালী এবং কক্সবাজার শহরে এমন মর্মান্তিক তিনটি পৃথক ঘটনা ঘটে।

পেকুয়ায় পুকুরে ডুবে খালা-ভাগ্নির মৃত্যু:

শনিবার (১ জুন) সকালে কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের কাদিমাকাটা গ্রামে পুকুরের পানিতে ডুবে জন্নাতুল মাওয়া (৫) ও সিদরাতুল জন্নাত মুনিরা (৪) নামে দুই শিশুর মৃত্যু ঘটনা ঘটে।

জন্নাতুল মাওয়া ওই গ্রামের জহির আলমের মেয়ে ও মুনিরা একই উপজেলার টৈটং ইউনিয়নের মধুখালী গ্রামের বেলাল হোছাইনের মেয়ে। তারা সম্পর্কে খালা-ভাগ্নি।

স্থানীয় ওসমান নামে একজন জানান, সিদরাতুল জান্নাত মুনিরা নানার বাড়িতে বেড়াতে এসেছিল। সকালে খালা জান্নাতুল মাওয়া ও ভাগ্নি মুনিরা খেলতে গিয়ে বাড়িতে না ফেরায় পরিবারের লোকজন তাদের খোঁজ না পেয়ে খোঁজাখুঁজি করলে পাশের বাড়ির একটি পুকুরে তাদের লাশ দেখতে পায়। একপর্যায়ে তারা শিশু দু’টির মৃতদেহ উদ্ধার করে।

ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম জানান, পরিবারের লোকজনের অগোচরে খেলতে গিয়ে কেউ একজন পুকুরে পড়ে গেলে অপরজন তাকে বাঁচাতে গিয়ে দুইজনের মৃত্যু হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে। এমন ঘটনা খুবই মর্মান্তিক।

মহেশখালীতে পুকুর থেকে স্কুল ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার:

শনিবার (১ জুন) দুপুরে মহেশখালী উপজেলার হোয়ানকের ছনখোলা পাড়া জামে মসজিদের পুকুরে ভাসমান অবস্থায় নকীবুল ইসলাম (৯) নামের এক স্কুল ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে খেলতে গিয়ে পুকুরে পড়ে তার মৃত্যু হয়েছে।

নকীবুলের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে তার পিতা খাইরুল আমিন জানায়, নকীবুল কে আজকে দুপুরে অনেক খোঁজাখুঁজির পর পাওয়া না গেলে, একপর্যায়ে ছনখোলা পাড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ এলাকার খুঁজতে গিয়ে পুকুরে ভাসমান অবস্থায় তার লাশ পাওয়া যায়। তাঁকে উদ্ধার করে নিকটস্থ চিকিৎসকের কাছে নেওয়া হলে, কর্তব্যরত চিকিৎসক নকীবুল কে মৃত ঘোষণা করে।

নিহত নকীবুল হোয়ানকের হরিয়ার ছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী। তার এমন মর্মান্তিক মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

বড় ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেলো ছোট ভাইয়ের:

শনিবার (১ জুন) দুপুর ২টার দিকে কক্সবাজার শহরের নাজিরারটেক সমুদ্রে মাছ ধরতে গিয়ে ঢেউয়ের কবলে পড়ে রিফাত নামের এক কিশোর। পরে ওই কিশোরকে ঢেউয়ের কবল থেকে বাঁচাতে যায় এক সঙ্গে মাছ ধরতে আসা তার আপন ছোট ভাই সিফাত আলম। এতে ঢেউয়ের কবল থেকে রিফাত বেঁচে গেলেও বেঁচে ফিরেনি সিফাত আলম। বড় ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে ঢেউয়ের কবলে পড়ে মৃত্যু হয় তার।

নিহতের পিতা আব্দুস শুকুর জানান, ছোট একটি জাল নিয়ে রিফাত-সিফাত দুই ভাই নাজিরারটেক সাগরে খেলার ছলে মাছ ধরতে যায়। সেখানে রিফাত (বড় ছেলে) সমুদ্রের ঢেউয়ের কবলে পড়ে। তাকে বাঁচাতে গিয়ে তার ছোট ছেলে সিফাত আলম (১০) জালসহ ঢেউয়ের কবলে পড়ে। পরবর্তীতে তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে।

পাঠকের মতামত: