কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ১ ডিসেম্বর ২০২০

কক্সবাজার পুলিশে গণবদলি

আমূল পরিবর্তন আসছে কক্সবাজার জেলা পুলিশে। দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজার জেলায় কর্মরত রয়েছেন এমন কনস্টেবল থেকে কর্মকর্তা সবাইকে সরিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুলিশ সদর দপ্তর।

আগামীকাল শুক্রবার চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয়ে যোগ দিচ্ছেন ৫৩ জন পুলিশ পরিদর্শক ও ৭৩৪ জন কনস্টেবল। বদলিকৃত পুলিশ কর্মকর্তাদের আজ (বৃহস্পতিবার) ঢাকা রাজারবাগ পুলিশ অডিটরিয়ামে উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ব্রিফিং করবেন। এর আগে গত ২২ সেপ্টেম্বর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সহকারী পুলিশ সুপার পদমর্যাদার সাত কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়েছে।

টেকনাফের ঘটনার পর নড়েচড়ে বসেছে পুলিশ সদর দপ্তর। প্রতিটি ইউনিটে শুদ্ধি অভিযান চালানোর পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। বদলিকৃত পরিদর্শকদের কেউ চট্টগ্রাম জেলার বাসিন্দা নয়।
সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যাকাণ্ডের পর কক্সবাজার জেলা পুলিশকে ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে পুলিশ সদর দপ্তর এমনটিই ধারণা করা হচ্ছে।

জানতে চাইলে সদ্য যোগ দেয়া চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন জানান, ২৫ সেপ্টেম্বরের (আগামীকাল) পর থেকে কক্সবাজার জেলা পুলিশে দৃশ্যমান পরিবর্তন আসবে। অনেকটা কক্সবাজার জেলার পুরোটার পুলিশে পরিবর্তন করা হবে। এটাকে নিয়মিত বদলি অংশ হিসাবে উল্লেখ করেছেন ডিআইজি।

গত ৩১ জুলাই সিনহা হত্যকাণ্ডের ঘটনার দেড়মাসের মাথায় গত ১৬ সেপ্টেম্বর কক্সবাজারে পুলিশ সুপার (এসপি) এবি এম মাসুদ হোসেনকে রাজশাহীর পুলিশ সুপার হিসাবে বদলি করা হয়। আর ঝিনাইদহের এসপি হাসানুজ্জামানকে কক্সবাজার জেলা পুলিশের দায়িত্ব দেয়া হয়।

এরপর গত ২১ সেপ্টেম্বর একদিনে সাতজন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সহকারী পুলিশ সুপার পদমর্যাদার কর্মকর্তাকে বদলির আদেশ দেন পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. বেনজির আহমদ।
একই দিনে (২১ সেপ্টম্বর) ৫৩ জন পুলিশ পরিদর্শক ও ৭৩৪ জন কনস্টেবলকে বদলি করা হয়। ২১ সেপ্টেম্বর পুলিশ সদর দপ্তরের এডিশনাল আইজি (এএন্ডও) ড. মইনুর রহমান চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক আদেশে বলা হয়েছে, বদলিকৃত পুলিশ পরিদর্শকগণ বদলিকৃত ইউনিটে যোগদানের জন্য ২৩ সেপ্টেম্বর (বুধবার) বর্তমান কর্মস্থল হতে ছাড়পত্র গ্রহণ করবেন। ২৫ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয় চট্টগ্রামে যোগদান করবেন।

এর আগে বদলিকৃত পুলিশ পরিদর্শকগণকে আজ বৃহস্পতিবার সকাল দশটায় রাজারবাগ অডিটরিয়ামে পুুরো পোশাকে ব্রিফিংয়ে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে আদেশ।
সংশ্লিষ্টসূত্রে জানাযায়, টেকনাফে সাবেক মেজর সিনহা হত্যাকাণ্ডের পর পুলিশকে আরও ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। এই নিয়ে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিয়ে কয়েক দফা বিশেষ বৈঠক করেছেন। যেসব পুলিশ কর্মকর্তা বা সদস্য বছরের পর বছর ধরে একই স্থানে চাকরি করে আসছেন তাদের সরানোর পরিকল্পনা হয়েছে বলে জানা যায়। পাশাপাশি যারা অনিয়ম ও দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত তাদের তালিকা করা হচ্ছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুলিশের একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, দেশের কোথাও যেন টেকনাফের মতো আর কোনো ঘটনার জন্ম না দেয় সেজন্য বেশকিছু উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় কক্সবাজার জেলায় পুলিশের বড় ধরনের রদবদল হচ্ছে। পুলিশের উক্ত কর্মকর্তা বলেন, যেসব পুলিশ সদস্য নানা অনিয়ম বা দুর্নীতিতে জড়িত আছে তাদের তালিকা করার কাজ শুরু হয়েছে। বছরের পর বছর ধরে যেসব পুলিশ কর্মকর্তা বা সদস্য একই রেঞ্জ, জেলা বা মেট্রো এলাকায় আছে তাদের সরিয়ে অন্যত্র বদলি করা হবে। বিশেষ করে থানার ওসিদের ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে পুলিশ সদর দপ্তর।

পাঠকের মতামত: