কক্সবাজার, শুক্রবার, ২০ নভেম্বর ২০২০

কুতুবদিয়া হাসপাতালে যুক্ত হচ্ছে সেন্ট্রাল অক্সিজেন ব্যবস্থা

কাইছার সিকদার::

কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা কুতুবদিয়ার মানুষ সেন্ট্রাল অক্সিজেনের সুবিধা পেতে যাচ্ছে অতি শীগ্রই। এ সংবাদে আনন্দে ভাসছে কুতুবদিয়ার সর্বস্থরের মানুষ।

সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপনের জন্য রবিবার (৫জুলাই) দুপুরে হাসপাতাল পরিদর্শন করেছে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের ইঞ্জিনিয়ার ও কর্মকর্তাবৃন্দ।

সূত্রে জানা গেছে, করোনা রোগীদের জন্য অক্সিজেনের দরকার। আর সেই অক্সিজেনের ঘাটতি মেটাতে কিছু দানবীর লোক সাহায্য প্রদানের জন্য হাত বাড়িয়েছে। তাদের সেই সাহায্যের অর্থ দিয়েই বসানো হচ্ছে কুতুবদিয়া হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট। আর এই সুবিধা পেতে যাচ্ছে কুতুবদিয়ার পৌনে দুই লাখ মানুষ।

সূত্রে আরো জানা যায়, কুতুবদিয়া -মহেশখালীর সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক এর সহায়তায় প্রথমে ৩০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার এবং পরবর্তীতে আরো ৫টি অক্সিজেন সিলিন্ডার কুতুবদিয়া হাসপাতাল পেয়েছে। সেই সাথে পেয়েছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের জন্য প্রয়োজনীয় ঔষধ সহ বিভিন্ন ধরনের সরঞ্জামাদি কেনার জন্য বড় অংকের বরাদ্ধ। যার টেন্ডারের মাধ্যমে কেনা হয়েছে প্রয়োজনীয় ঔষধপত্র সহ যাবতীয় চিকিৎসা সরঞ্জাম। সেজন্য কুতুবদিয়ার মানুষ আশেক উল্লাহ রফিক এমপিকে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানিয়েছে। সেই সাথে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও।

এদিকে, করোনা আক্রান্ত রোগীদের কথা চিন্তা করে কুতুবদিয়া হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট বসানোর জন্য এগিয়ে আসছে কিছু মানবিক মানুষ।

সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপনের জন্য হাসপাতাল পরিদর্শন করেছে এ.কে ইঞ্জিনিয়ারিং টেকনোলজি গ্রুপের ইঞ্জিনিয়ার আল জাবের ও তার সহকারী সাইফুল ইসলাম।
এ.কে ইঞ্জিনিয়ারিং টেকনোলজির প্রধান ইঞ্জিনিয়ার আলী হোসেনের বরাত দিয়ে তারা আশা প্রকাশ করছেন-২/৩ দিনের মধ্যেই সব মালামাল এসে পৌঁছাবে এবং ৭ দিনের মধ্যে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট বসানোর কাজ শেষ হবে।

কুতুবদিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী বলেন, কিছু মানবিক মানুষের সহায়তায় আমরা শিগগিরই সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট পেতে যাচ্ছি। কুতুবদিয়ার পৌনে ২ লক্ষ মানুষ এই সুবিধা পাবে। যারা সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট বসানোর জন্য সহায়তা দানে এগিয়ে আসছেন ওইসব দানবীর লোকদের আমি কুতুবদিয়াবাসী ও হাসপাতালের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ১০ দিনের মধ্যে কুতুবদিয়া হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট বসানোর কাজ সমাপ্ত হবে। এটা কুতুবদিয়াবাসীর জন্য সু-খবর। আর সে লক্ষ্যে হাসপাতালে ১২টি বেড়ে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট এর লাইন সংযোগ করা হবে। এতে করে করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য অক্সিজেনের সংকট অনেকাংশে লাগব হবে। কুতুবদিয়া হাসপাতালের সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপনের জন্য যিনি প্রথম এগিয়ে আসলেন চট্টগ্রাম পার্কভিউ হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ সার্জন ডাক্তার মোর্শেদ আলীর প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

পাঠকের মতামত: