কক্সবাজার, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে ২-৪ ফুট উচ্চতার জোয়ার হতে পারে

ঘূর্ণিঝড় ইয়াস ২৬ মে আঘাত হানতে পারে। এদিন পূর্ণিমার প্রভাব থাকায় স্বাভাবিকের চেয়ে ২ থেকে ৪ ফুট অধিক উচ্চতার জোয়ারের আশঙ্কা করছে আবহাওয়া অধিদফতর। সেইসঙ্গে ঘূর্ণিঝড়টি উপকূল অতিক্রম করার সময় উপকূলীয় এলাকাগুলোতে ১০০ কিমি বেগে ঝড়ের সঙ্গে অতিভারী বর্ষণ হতে পারে।

২৬ মে দুপুরের দিকে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস উড়িষ্যার প্যারাদ্বীপ ও পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপের মাঝ দিয়ে স্থলভাগে উঠে আসতে পারে।

তখন ঝড়ের কেন্দ্রে বাতাসের গতিবেগ ১৮৫ কিমি হতে পারে। এরপর ধীরে ধীরে শক্তিক্ষয় করে বৃহস্পতিবার তা নিম্নচাপে পরিণত হবে।
ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের কাছে সাগর খুবই বিক্ষুব্ধ রয়েছে। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ২ (দুই) নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

ইয়াস উপকূল অতিক্রমকালে খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, ভোলা, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর ও চট্টগ্রাম জেলায় এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরে ভারী থেকে অতিভারী বর্ষণসহ ঘণ্টায় ৮০-১০০ কিমি বেগে দমকা অথবা ঝড়ড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

অন্যদিকে পূর্ণিমার প্রভাবে খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, ভোলা, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর ও চট্টগ্রাম জেলার নিমাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ২-৪ ফুট অধিক উচ্চতার জোয়ারে প্লাবিত হতে পারে।

উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

পাঠকের মতামত: