কক্সবাজার, শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১

চকরিয়ায় গৃহবধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেফতার ১

কক্সবাজারের চকরিয়ায় সুদের টাকা পরিশোধ করতে না পারায় গৃহবধূকে গাছের সাথে বেঁধে মারধর ও নির্যাতনের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। বুধবার রাতে নির্যাতনের শিকার নুর আয়শা বেগম বাদী হয়ে ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

ওই মামলায় জহির আহমদ নামের এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। জহির বরইতলী ইউনিয়নের হাফালিয়াকাটা মুরাপাড়া এলাকার বাসিন্দা ও নির্যাতনকারী শওকত ওসমানের পিতা।

এদিকে কক্সবাজার জেলা পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এসময় তিনি ভিকটিম ও তার পরিবারের সদস্য এবং স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলেন। তিনি ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারপূর্বক শাস্তির আওতায় আনার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের বলেন, মূল আসামি শওকত ওসমান পলাতক রয়েছে।

তাকে গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গ্রেফতার জহির আহমদকে আদাতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।
প্রসঙ্গত, কয়েক মাস আগে নুর আয়শা তার স্বামীর চিকিৎসার জন্য শওকত ওসমানের কাছ থেকে চার হাজার টাকা সুদের উপর ধার নেয়। ইতোমধ্যে নুর আয়শা সুদ ও আসলসহ আট হাজার টাকা পরিশোধও করে।

মঙ্গলবার দুপুরের দিকে শওকত ওসমান আরো দুই হাজার টাকা দাবি করে। কিন্তু নুর আয়শা ওই টাকা পরে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিলে তা মানতে নারাজ শওকত ওসমান। এ নিয়ে দুইজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে শওকত ওসমান গৃহবধূ নুর আয়শাকে একটি গাছের সাথে পরনের শাড়ি দিয়ে বেঁধে মারধর, অমানবিক নির্যাতন ও শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালায়।
ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার দুপুরের দিকে।

কিন্তু ভুক্তভোগী এই বিষয়ে কাউকে কিছু না বলায় জানা যায়নি। পরে বুধবার সকালের দিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিষয়টি ভাইরাল হলে জানাজানি হয়।

পাঠকের মতামত: