কক্সবাজার, শুক্রবার, ২০ নভেম্বর ২০২০

চকরিয়া পৌর এলাকায় অল্প বৃষ্টিতে সড়কে জলাবদ্ধ

বর্ষা মৌসুমের শুরুতে অল্পবৃষ্টিতে পুকুরে পরিণত হয়েছে কক্সবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধীন চকরিয়া জনতা মার্কেট বাঘগুজারা সড়কের হালকাকারা ৩ বটতল এলাকার একটি অংশ। কয়েকমাস ধরে বৃষ্টির পানি সড়কে প্রবাহিত হচ্ছে। দিনদিন পানি সড়কের উপর অংশে জমাট থাকায় বর্তমানে জলাবদ্ধতা তৈরী হয়েছে।

অপরদিকে জলাবদ্ধতা মাড়িয়ে প্রতিদিন শত শত ছোট-বড় যানবাহন চলাচলের কারণে সেখানে বেশ কটি গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এ অবস্থার কারণে হালকাকারা বটতল এলাকাটি বর্তমানে পুকুরে পরিণত হয়েছে। এতে ব্যহৃত হচ্ছে সবধরণের গাড়ি চলাচল। পাশাপাশি চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন স্থানীয় অধিবাসিসহ সর্বসাধারণ।

হালকাকারা বটতল এলাকার বাসিন্দা সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) চকরিয়া উপজেলা কমিটির সদস্য জিয়াউদ্দিন বলেন, অল্পবৃষ্টির পানিতে চকরিয়া জনতা মার্কেট বাঘগুজারা সড়কের হালকাকারা বটতল এলাকার অংশটি রীতিমত পুকুরে পরিণত হয়েছে। কয়েকমাস ধরে বৃষ্টির পানি সড়কে প্রবাহিত হচ্ছে। তার উপর বালু ভর্তি ভারী যানবাচন চলাচলের কারণে বর্তমানে সড়কটিতে একাধিক গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

তিনি বলেন, সড়কের এমন দৈন্যদশা অব্যাহত থাকলেও সড়ক বিভাগের লোকজন ক্ষতিস্থ অংশটি মেরামতে একেবারে উদাসীন। এমনকি স্থানীয় পৌরসভা কর্তৃপক্ষও রয়েছে দর্শকের ভুমিকায়। এ অবস্থার কারণে সড়কটি দিয়ে চলাচলের ক্ষেত্রে স্থানীয় অধিবাসিসহ সর্বসাধারণকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন চকরিয়া পৌরসভার ২নম্বর ওয়ার্ডের স্থানীয় কাউন্সিলর রেজাউল করিম। তিনি বলেন, একদিকে বৃষ্টির পানি, অপরদিকে তমাগ্রুপের প্রতি রাতে ২শতাধিক ভারী যানবাহন চলাচলের কারণে সড়কের হালকাকারা ৩ বটতল অংশটি পুকুর পরিণত হয়েছে। রাতে গাড়ির আওয়াজে মানুষ শান্তিতে ঘুমাতে পারছে না। পৌর ১নং ওয়ার্ডের বালির পয়েন্ট থেকে জালিয়াপাড়া হয়ে বড় বড় বালি ভর্তি ট্রাক গুলো যাওয়া আসা করাতে রাস্তার এই অবস্থা। এতে ব্যহৃত হচ্ছে সবধরণের গাড়ি চলাচল ব্যহৃত ও বেড়েছে জনদুর্ভোগ। এ-বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

পাঠকের মতামত: