কক্সবাজার, শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১

চট্টগ্রামে নির্বাচনী সহিংসতায় নিহতের ঘটনায় গ্রেপ্তার ১৯

চট্টগ্রাম নগরীর ডবলমুরিং থানাধীন পাঠানটুলী এলাকায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে গোলাগুলিতে একজন নিহতের ঘটনায় বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী মো. আবদুল কাদেরসহ ১৯ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) রাতে সংঘর্ষের পর মোগলটুলী এলাকার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। কাউন্সিলর প্রার্থী মো. আবদুল কাদেরসহ আটক ১৯ জনকে মনসুরাবাদে গোয়েন্দা পুলিশ কার্যালয়ে নিয়ে রাখা হয়েছে। মো. আবদুল কাদের ছাড়াও আটক অন্যদের মধ্যে রয়েছে হেলাল উদ্দিন, রাজু, রিমন, খোকন।

আটকরা সবাই কাউন্সিলর প্রার্থী মো. আবদুল কাদেরের অনুসারী বলে জানা গেছে।
এর আগে, মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) রাতে ২৮ নম্বর পাঠানটুলী ওয়ার্ডের মগপুকুর পাড় এলাকায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাহাদুর ও বিদ্রোহী প্রার্থী ও সদ্য সাবেক কাউন্সিলর মো. আবদুল কাদেরের সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ দুইজনকে হাসপাতালে নেওয়া হলে মো. আজগর আলী বাবুল (৫৫) নামে একজন মারা যান। নিহত আজগর আলী বাবুল আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাহাদুরের সমর্থক বলে জানা গেছে।

আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাহাদুর বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেন।
ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সদীপ কুমার দাশ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মঙ্গলবার রাতে দুই গ্রুপের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এতে আজগর আলী বাবুল নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। মাহবুব নামে গুলিবিদ্ধ এক যুবককে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

উপ-পুলিশ কমিশনার ফারুক জানান, পাঠানটুলি ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাহাদুর এবং বিদ্রোহী প্রার্থী আবদুল কাদেরের সমর্থকদের মধ্যে রাত ৮টার দিকে সংঘর্ষ ও গোলাগুলি শুরু হয়। এতে একপর্যায়ে দু’জন গুলিবিদ্ধ হয়। যাদের মধ্যে একজন মারা যান। খবর পেয়ে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। ঘটনাস্থলে বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

পাঠকের মতামত: