কক্সবাজার, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০

চট্টগ্রামে রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টি, নিম্নাঞ্চলে জলাবদ্ধতা

টানা বৃষ্টিতে চট্টগ্রাম নগরের বিভিন্ন এলাকায় সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা। বহদ্দারহাট, মুরাদপুর, দুই নম্বর গেইট, চকবাজার, বাকলিয়া, খাতুনগঞ্জ, আগ্রাবাদ সিডিএ আবাসিক, হালিশহর এলাকাসহ অধিকাংশ নিম্নাঞ্চল পানিতে ডুবে গেছে। শুধু সড়কে নয়, বাসা ও দোকানপাটেও ঢুকেছে পানি। কোনো কোনো স্থানে ফ্লাইওভারের নিচেও জমেছে হাঁটু পানি।

চট্টগ্রামে রোববার দিনভর রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টিপাত হয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।
এদিকে চট্টগ্রাম নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে ৫ হাজার ৬১৬ কোটি টাকার মেগা প্রকল্পের কাজ শুরু হলেও করোনার কারণে তা এখন বন্ধ। তিন বছর মেয়াদকালের এ প্রকল্পের দুই বছর পার হয়ে গেলেও এখনও খাল খনন, খাল পরিষ্কার এবং খাল উদ্ধারের কাজ অনেক বাকি রয়েছে।

ইতোমধ্যে জলাবদ্ধতা নিরসনে নগরের পাথরঘাটার টেকপাড়া, কলাবাগিচা ও মরিয়ম বিবি খাল, মহেশখালে, ফিরিঙ্গিবাজার খাল, চাক্তাই খাল এবং রাজাখালী খালে ¯øুইস গেইটের জন্য বাঁধ দেওয়া হয়েছে।
জলাবদ্ধতায় দুর্ভোগ নিয়ে নগরীর চকবাজারের বাসিন্দা হাফিজ রশীদ জানান, চট্টগ্রামের মানুষ জলাবদ্ধতার দুর্ভোগ থেকে কখন মুক্তি পাবে তা জানি না। শুধু শুনছি প্রকল্পের পর প্রকল্প হচ্ছে,, কাজা হচ্ছে, উন্নয়ন হচ্ছে। একদিকে সিটি করপোরেশন করছে, অন্যদিকে সিডিএ করছে। কিন্তু বর্ষা মৌসুম আসলেই মানুষ নানাভাবে জলাবদ্ধতায় ক্ষীতগ্রস্ত হচ্ছে।

Loading...

এটা এক ধরনের উন্নয়ন তামাশা।

তিনি অভিযোগ করেন, সড়ক উঁচু করেও রেহাই মিলছে না। খালগুলো আবারও ময়লায় ভরাট হয়ে যাচ্ছে। পুরো চকবাজার এলাকায় একটু বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে। মানুষ আর্থিকসহ নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

প্রকল্প পরিচালক ও সিডিএ’র নির্বাহী প্রকৌশলী আহমদ মঈনুদ্দিনের দাবি, করোনার কারণে বর্তমানে কাজ বন্ধ থাকলেও নিয়মিত কার্যক্রম হিসেবে পানি নিষ্কাশনের কাজ চলছে। তবে অতি বৃষ্টিপাতের কারণে কোথাও কোথাও পানি জমা হয়ে আছে। তাতে কিছু মানুষের ভোগান্তি হচ্ছে।

এদিকে পতেঙ্গা প্রধান আবহাওয়া কার্যালয়ের সহকারী আবহাওয়াবিদ ও পূর্বাভাস কর্মকর্তা উজ্জ্বল কান্তি পাল জানান, রোববার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টিপাত হয়েছে ৫৯.৭ মিলিমিটার। সাগরে জোয়ার থাকায় এ সময় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয় নগরীর বিভিন্ন স্থানে।   চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরের জন্য কোনও সতর্ক সংকেত না থাকলেও নদী বন্দরের জন্য ১ নম্বর নৌ সতর্কতা সংকেত রয়েছে বলে জানান তিনি।

পাঠকের মতামত: