কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১

চসিক নির্বাচনে ৭ জানুয়ারির আগে প্রচারণা নয়

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা করা যাবে আগামী ৮ জানুয়ারির। এর আগে কোনোভাবেই নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে পারবে না প্রার্থীরা। উল্টো প্রার্থীদের লাগানো পোস্টার, ব্যানার, দেয়ালিকা, বিলবোর্ড, গেট, তোরণ, প্যান্ডেল ও আলোকসজ্জার প্রচার সামগ্রী সরিয়ে ফেলার নির্দেশনা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। প্রার্থীরা স্ব-উদ্যোগে আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সকল প্রকার নির্বাচনী সামগ্রী অপসারণ না করলে নির্বাচনী আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানানো হয়েছে।

চট্টগ্রামের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও চসিক নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান জানান, নির্বাচনের সময়সূচি ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন ইতোমধ্যে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। কিছু কিছু জায়গায় প্রচার সামগ্রী  প্রদর্শিত হচ্ছে। যা নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন। আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এসব প্রচারণা সামগ্রী সরিয়ে ফেলার জন্য বলা হয়েছে। নির্বাচনী আচরণবিধি অনুযায়ী নির্বাচনী তারিখের ২১দিন পূর্বে কোনোভাবেই প্রচারণা চালাতে পারবে না প্রার্থীরা।

এর আগে গত ১৫ ডিসেম্বর চার প্রার্থী মারা যাওয়ায় তিনটি সাধারণ ও একটি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নতুন তফসিল ঘোষণা করা হয়। এতে ৩০ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিল, পরদিন মনোনয়নপত্র বাছাই ও ৭ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়েছে। যা গণবিজ্ঞপ্তি আকারে প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন।

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে সাতজন, সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৫৬ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৬১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নির্বাচনে মোট ভোটার ১৯ লক্ষ ৫১ হাজার ৫২জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার নয় লক্ষ ৯৮ হাজার ৭২৩ জন ও নারী ভোটার নয় লক্ষ ৫২ হাজার ৩২৯ জন। ভোটকেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়েচ্ছে ৭৩৫টি। চার হাজার ৮৮৬টি কক্ষে ভোটগ্রহণে দায়িত্ব পালন করবেন ৭৩৫ জন প্রিসাইডিং কর্মকর্তা, চার হাজার ৮৮৬ জন সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ও নয় হাজার ৭৭২ পোলিং কর্মকর্তা।

পাঠকের মতামত: