কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০

জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে পদোন্নতি প্রাথমিক শিক্ষকদের

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষকদের পদোন্নতি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ জন্য শিক্ষকদের সম্মিলিত জ্যেষ্ঠ তালিকা প্রকাশের নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। সোমবার এ সংক্রান্ত নির্দেশ জারি করা হয়েছে। ছয়টি শর্ত মেনে এই জ্যেষ্ঠ তালিকার খসড়া তৈরি করে যাচাই-বাছাইয়ের জন্য ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে দেশের সকল শিক্ষা কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

শর্তগুলো হচ্ছে- বিদ্যমান ২০১৯ সালের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা অনুসরণ করতে হবে। ২০১৯ সালের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালার তফসিল বিধি ২(গ) অনুযায়ী প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতির যোগ্যতা সহকারী শিক্ষক পদে প্রশিক্ষণপ্রাপ্তসহ অন্তত সাত বছর চাকরির অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। ২০১১ সালের নন-ক্যাডার কর্মকর্তা ও কর্মচারী (জ্যেষ্ঠতা ও পদোন্নতি) বিধিমালার বিধি ৪(১)(ক) অনুসারে পূর্ববর্তী উন্মুক্ত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকরা পরবর্তী উন্মুক্ত নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকরা জ্যেষ্ঠতা পাবেন।

উন্মুক্ত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির ভিত্তিতে পর্যায়ক্রমে একাধিক নিয়োগ আদেশ জারি হলে নন-ক্যাডার কর্মকর্তা ও কর্মচারী (জ্যেষ্ঠতা ও পদোন্নতি) বিধিমালা-২০১১ এর বিধি ৪ (১) (খ) এ যথার্থ অনুসারে তালিকা না থাকলে পূর্বে জারি বা আদেশে অন্তর্ভুক্ত শিক্ষকরা পরে জারি করা আদেশের অন্তর্ভুক্ত শিক্ষকদের তুলনায় জ্যেষ্ঠতা তালিকার উপরে গণ্য হবেন। একই নিয়োগ আদেশে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের মধ্যে মেধাতালিকা না থাকলে নন-ক্যাডার কর্মকর্তা ও কর্মচারী (জ্যেষ্ঠতা ও পদোন্নতি) বিধিমালা-২০১১ এর বিধি ৪(১) (খ) অনুসারে তাদের পারস্পরিক জ্যেষ্ঠতা বয়সের জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে নির্ধারিত হবে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন প্রকল্পে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের রাজস্ব বাজেটের পদে নিয়মিতকরণ ও জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ বিধিমালা-২০০৫ এর অধীনে নিয়মিত করা শিক্ষকদের জ্যেষ্ঠতা ওই বিধিমালার বিধি ৬(১) অনুসারে নিয়মিতকরণের তারিখ থেকে গণনা করতে হবে।

এদিকে অপর এক আদেশে বলা হয়েছে, মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা নিজেদের বদলির তদবির নিয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরে যেতে পারবেন না। পরিচালক (প্রশাসন) মো. মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত একটি আদেশ জারি করা হয়েছে। আদেশে বলা হয়, ডিপিইর মাঠ পর্যায়ে কর্মরত কর্মকর্তারা প্রায়ই বিনা অনুমতিতে অধিদফতরের মহাপরিচালকের কাছে নিজের বদলির তদবির নিয়ে ব্যক্তিগতভাবে দেখা করার জন্য হাজির হচ্ছেন। যা সরকারি বিধি বিধানের পরিপন্থী, বর্তমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধিরও পরিপন্থী। কারও বদলির আবেদন করতে হলে তা যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে পাঠানো বাঞ্ছনীয়। এক্ষেত্রে ব্যক্তিগত উপস্থিতির প্রয়োজন নেই।

এমতাবস্থায়, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মাঠ পর্যায়ের সব কর্মকর্তাকে ব্যক্তিগত প্রয়োজনে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরে আসার আগে নিয়ন্ত্রণকারী কর্মকর্তা এবং অধিদফতরের পরিচালক প্রশাসনের পূর্বানুমতি ও ছুটি গ্রহণের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হয়েছে।

পাঠকের মতামত: