কক্সবাজার, বৃহস্পতিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২০

টেকনাফে পাহাড় ধসের আশঙ্কা, ঝুঁকিপূর্ণ বসবাসকারীদের সরিয়ে নিতে মাইকিং

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশে বিভিন্ন পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকিপূর্ণ বসবাসকারীদের নিরাপদে সরে যেতে মাইকিং করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সিপিপির স্বেচ্ছাসেবকরা মাইকিং করেন।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. সিফাত বিন রহমানসহ সিপিপির স্বেচ্ছাসেবক টিমের ইলিয়াছ, নুরুল আলম দস্তগীর, বশির, লাল মিয়ার নেতৃত্বে টেকনাফ সদর, পৌরসভা, হ্নীলা, হোয়াইক্যং ও বাহারছড়া ইউনিয়নের বিভিন্ন পাহাড়ি এলাকায় মাইকিং করা হয়।

বনবিভাগ সূত্রে জানা গেছে, টেকনাফ উপজেলায় ৩৯ হাজার হেক্টর বনভূমিতে অবৈধভাবে প্রায় ৫০ হাজার মানুষ বসবাস করছে।

এদের মধ্যে পাহাড়ের ঝুঁকিপূর্ণ পাদদেশে বসবাস করছে ২৫ হাজারের মতো মানুষ। উপজেলার ২৫টি পাহাড়কে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।
টেকনাফ উপজেলা সিপিপির আব্দুল মতিন বলেন, টেকনাফে অতিরিক্ত ভারী বর্ষণের কারণে পাহাড় ধসের সম্ভাবনা রয়েছে। তাই পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থানকারী জনগণকে নিরাপদে ও সতর্ক অবস্থায় থাকার জন্য সিপিপি টেকনাফের স্বেচ্ছাসেবকেরা জনগণকে মাইকিং করে সতর্ক করেছেন।

আজ বিভিন্ন এলাকায় সিপিপির স্বেচ্ছাসেবক টিমের সদস্যরা মাইকিং করেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, টানা ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে পাহাড় ধসের আশঙ্কা রয়েছে। তাই পুরো উপজেলার বিভিন্ন পাহাড়ে ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাসকারী লোকজনকে নিরাপদে সরে যেতে মাইকিং করে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। না সরলে আমরা নিজেরা গিয়ে তাদের উচ্ছেদ করবো।

পাঠকের মতামত: