কক্সবাজার, বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

টেকনাফে রোহিঙ্গা-স্থানীয় বিয়ে বাড়ছে, দম্পতি আটক

কক্সবাজারের টেকনাফে রোহিঙ্গা-স্থানীয় বিয়ে বেড়েই চলেছে। শুক্রবার (২০ আগস্ট) দুপুরে এমন এক দম্পতিকে আটক করেছে ১৬ এপিবিএন সদস্যরা। আটককৃতরা হচ্ছে টেকনাফ পৌর এলাকার ১নং ওয়ার্ডের নাইটং পাড়া, টার্মিনালের মৃত নবী হোসনের ছেলে ইউনুস (৩২) ও টেকনাফের নয়াপাড়া রেজিস্টার্ড ক্যাম্পের এইচ ব্লকস্থ ৬৬৮ নং শেডে বসবাসরত রোহিঙ্গা মো. আলমের মেয়ে শুকতারা(২২)।

পরে তাদেরকে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য টেকনাফ মডেল থানায় সোপর্দ করা হয়।

কক্সবাজার ১৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক (এসপি) তারিকুল ইসলাম তারিক বলেন, “আজ শুক্রবার নয়াপাড়া রেজিস্টার্ড ক্যাম্পের এইচ ব্লকস্থ ৬৬৮ নং শেডে বসবাসরত রোহিঙ্গা নারী শুকতারা (এমআরসি-৫০৫২২) সংবাদ দেয় যে একজন স্থানীয় পুরুষ তাকে অপহরণ করার জন্য তার ঘরে প্রবেশ করেছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে নয়াপাড়া এপিবিএন ক্যাম্পের অফিসার ও ফোর্স দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে স্থানীয় ইউনুসকে আটক করে।”

অনুসন্ধানকালে জানা যায় যে তারা ২০২০ সালের ১৫ ডিসেম্বর বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয় এবং বর্তমানে তাদের মাঝে বনিবনা হচ্ছে না।

এরই প্রেক্ষিতে ইউনুস স্ত্রীর খোঁজখবর নিতে আসলে তার স্ত্রী শুকতারা স্বামীকে আটকানোর জন্য পুলিশকে সংবাদ দেয়।

এদিকে, ইউনুসের স্থানীয় আরো এক স্ত্রী রয়েছে। সেখানে তিন সন্তান রয়েছে।

এ বিষয়ে পরবর্তী প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান এপিবিএন অধিনায়ক তারিকুল ইসলাম তারিক।

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান বলেন, “রোহিঙ্গা এবং বাংলাদেশী বিয়ে আইনত অবৈধ। তাই এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।” আজাদী

পাঠকের মতামত: