কক্সবাজার, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪

তুমব্রু বাজারে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের পরিচয় যাচাই শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক::

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির শূন্যরেখায় আগুনে বসতঘর হারিয়ে তুমব্রু বাজারে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের পরিচয় যাচাই-বাচাই শুরু হয়েছে। এ বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে অতিরিক্ত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারকে (আরআরআরসি) প্রধান করে একটি কমিটি করা হয়েছে। কমিটির বাাকি সদস্যরা হলেন, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন, কক্সবাজার জেলা পুলিশ, বান্দরবান ডিসি অফিস এবং অন্যান্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থার প্রতিনিধিরা।

শনিবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (আরআরআরসি) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। তিনি জানান, ‘পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে করা কমিটি তুমব্রু বাজারে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের শনাক্তকরনে কাজ শুরু করছে। তাদের পরিচয় যাচাই-বাছাই কাজ চলছে। তাদের যাচাই-বাছাই শেষে কমিটি পরবর্তী পদক্ষেপের জন্য সুপারিশ করবে।’

তুমব্রু বাজারে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা নুর হাশিম জানান, আজকে এখানে সরকারের একটি প্রতিনিধি দল এসেছিল। আমাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। আমাদের অন্য জায়গায় সরিয়ে নেবে বলে শুনেছি।’

এর আগে ১৮ জানুয়ারি নাইক্ষ্যংছড়ির তুমব্রু সীমান্তের শূন্যরেখায় রোহিঙ্গা শিবিরে গোলাগুলি-অগ্নিসংযোগের ঘটনায় রোহিঙ্গা হামিদ উল্লাহ নিহত এবং মুহিব উল্লাহ (২৫) ও মোহাম্মদ হোসন (১২) নামে দুজন আহত হয়েছে। এ সময় শূন্যরেখার বসবাসকারী রোহিঙ্গাদের বসতঘর পুড়ে যায়। এরপর তারা তুমব্রু বাজারে তাবু টাঙিয়ে আশ্রয় নেয়।

চার রোহিঙ্গা আটক

এদিকে শনিবার ভোরে মিয়ানমার থেকে টেকনাফের নাফ নদীর জালিয়ার দ্বীপ এলাকা দিয়ে অনুপ্রবেশের সময় বিজিবির হাতে আটক হয়েছে চার রোহিঙ্গা। তাদের থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল হালিম।

ওসি জানান, ‘আটক ৪ রোহিঙ্গাকে বিজিবির দেওয়া মামলায় কক্সবাজার কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তারা অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশকালে আটক হয়েছিল।’

আটক রোহিঙ্গারা হলেন, ইসমাইল মিয়া (৪৬), হোসেন মোবারক (২৫), আবদার মল্লিক (২৫) ও আনিস (৩৬)। তারা সবাই মিয়ানমারের মংডুর উকিলপাড়া বাসিন্দা।

পাঠকের মতামত: