কক্সবাজার, রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০

দুই মাসে খাবার খরচ ২০ কোটি টাকার খবর অসত্য : ঢামেক পরিচালক

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের দুই মাসে খাবার খরচ ২০ কোটি টাকার খবর অসত্য বলে দাবি করেছেন হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন। আজ বুধবার হাসপাতালের সভাকক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি জানান।

হাসপাতালের পরিচালক বলেন, ‘ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের তিন বেলা খাবার খরচ ৫০০ টাকা। দুই মাসে খাবার খরচ ২০ কোটি টাকা-এই বক্তব্য অসত্য।

খাতওয়ারি খরচের হিসাব দিতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘২ হাজার ২৭৬ জন স্বাস্থ্যকর্মীর এক মাসে হোটেলে থাকা-খাওয়া বাবদ খরচ হয়েছে ভ্যাট ছাড়া ১১ কোটি ৮৬ লাখ ৩১ হাজার ২৫০ টাকা। আর ১৫ শতাংশ ভ্যাটসহ খরচ পড়েছিল ১৩ কোটি ৬৪ লাখ ২৫ হাজার ৯৩৭ টাকা। এর বাইরে ২ হাজার ২৭৬ জন জনের যাতায়াতে এক মাসে খরচ হয় ৪৬ লাখ ৯৮ হাজার ৮৭০ টাকা।

নাসির উদ্দিন জানান, চিকিৎসক, নার্স, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত আনসার সদস্যদের দুই মাস হোটেলে থেকে থাকা, খাওয়া ও পরিবহনের খরচ ২৬ কোটি টাকা খরচ হওয়ার কথা।

এর আগে এক মাসের খরচ হিসাব করে দুই মাসের জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ২০ কোটি টাকা বরাদ্দ চেয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছিল। তার পরিপ্রেক্ষিতে এই বরাদ্দ দেওয়া হয় বলেও জানান হাসপাতালের পরিচালক।

সংবাদ সম্মেলনে মেডিসিন বিশেষজ্ঞ বিল্লাল আলম বলেন, সংবাদমাধ্যমে চিকিৎসকেরা এক মাসে ২০ কোটি টাকার খাবার খেয়েছেন-এই প্রচারে তারা হতোদ্যম হয়ে পড়েছেন। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য খাতে দুর্নীতি হয়, তার সঙ্গে চিকিৎসকেরা যুক্ত নন। তারাও চান এসব দুর্নীতির তদন্ত হোক, প্রতিকার হোক।

ঢাকা মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক আহমেদুল কবির বলেন, তারা কোভিড রোগীদের প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। সংবাদ সম্মেলনে চিকিৎসক, নার্সসহ সব শ্রেণির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য নির্ধারিত হাসপাতালের ঠিকানা ও ফোন নম্বর দিয়ে খোঁজ নিতে বলেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাস চিকিৎসায় নিয়োজিত ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও কর্মীদের এক মাসের খাবারের বিল ২০ কোটি টাকা এসেছে বলে গতকাল মঙ্গলবার তথ্য পাওয়া যায়। বিষয়টি নিয়ে জাতীয় সংসদ অধিবেশনে বিতর্ক থেকে শুরু করে গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলে নানা আলোচনা-সমালোচনা।

পরে ঢামেকের স্বাস্থ্যকর্মীদের এক মাসের খাবারের বিল ২০ কোটি টাকা কী করে হয়, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপরই খাবারের বিল নিয়ে ওঠা বিতর্কের ব্যাখ্যা দিতে আজ সংবাদ সম্মেলনে আসেন ঢামেক পরিচালক।

পাঠকের মতামত: