কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২

দেশে আরও ১০ জনের ওমিক্রন শনাক্ত, সবাই ঢাকার

 

 

দেশে আরও ১০ জনের শরীরে করোনার নতুন ধরণ ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে। ওমিক্রনে আক্রান্তরা সবাই ঢাকা শহরের বাসিন্দা।

বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) জার্মানির গ্লোবাল ইনিশিয়েটিভ অন শেয়ারিং অল ইনফ্লুয়েঞ্জার (জিআইএসএআইডি) ওয়েবসাইটে এ তথ্য দেওয়া হয়। এ নিয়ে গত এক মাসে ২০ জনের শরীরে ধরণটি শনাক্ত হলো।

জিআইএসএআইডির তথ্য অনুযায়ী, গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর থেকে এ বছরের ৩ জানুয়ারির মধ্যে করোনা রোগীদের কাছ থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে গত ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত সাত দিনে পাঁচজনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। তবে ওয়েবসাইটটিতে করোনার ওমিক্রন আক্রান্তদের বিদেশ ভ্রমণের কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

ইনস্টিটিউট ফর ডেভেলপিং সায়েন্স অ্যান্ড হেলথ ইনিশিয়েটিভস, আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণাকেন্দ্র বাংলাদেশ (আইসিডিডিআরবি) এবং রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) সেই জিনোম সিকোয়েন্স ডেটা জমা দিয়েছে।

গত ১১ ডিসেম্বর দেশে প্রথম দুই নারী ক্রিকেটারের শরীরে ওমিক্রন শনাক্তের খবর দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। ওই নারী ক্রিকেট দল জিম্বাবুয়ে সফর করে দেশে ফিরেছিল। রাজধানীর মুগদা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে তারা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

এরপর ২৭ ডিসেম্বর একজনের ও গত ২৮ ডিসেম্বর চারজনের শরীরে ওমিক্রন ধরা পড়ে। সর্বশেষ তিনজনের শরীরে ওমিক্রন ধরা পড়ে গত ৩১ ডিসেম্বর।

তবে একসঙ্গে ১০ জনের শরীরে ওমিক্রন শনাক্তে হওয়ার খবর বৃহস্পতিবারই প্রথম এলো।

দেশে গত কয়েকদিন ধরেই করোনার ঊর্ধমুখী অবস্থার মধ্যেই ওমিক্রনে আরো ১০ জনের শনাক্তের খবর এলো। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার দেশে তিন মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ রোগী ও শনাক্ত হারের রেকর্ড হয়েছে। এক দিনে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা আবার ১১ শ ছাড়িয়ে গেছে এবং নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে দৈনিক শনাক্তের হার পৌঁছেছে ৫ শতাংশের কাছাকাছি।

ওমিক্রনে আক্রান্ত নতুন ১০ জনের ব্যাপারে কোনো তথ্য দিতে পারেনি সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)।

তবে প্রতিষ্ঠানের উপদেষ্টা ও সাবেক প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডা. মুশতাক হোসেন বলেন, ধরে নেয়া যায় আক্রান্তদের মধ্যে বিদেশ ভ্রমণের ঘটনা আছে অথবা এমন ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছেন।

এ বিশেষজ্ঞ বলেন, নতুন-পুরনো সবাই ঢাকার বাসিন্দা। তারমানে ঢাকায় ওমিক্রনের গুচ্ছ সংক্রমণ চলছে। আর কিছু দিন দেখলে বোঝা যাবে কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হয়েছে কি না।

পাঠকের মতামত: