কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ২ মার্চ ২০২১

পালংখালী অধিকার বাস্তবায়ন কমিটির কার্যক্রম সম্পর্কে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক::

উখিয়ার পালংখালী অধিকার বাস্তবায়ন কমিটির কার্যক্রম সম্পর্কে গণমাধ্যম কর্মীর সাথে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) বিকাল ৪ টায় উখিয়া প্রেসক্লাব কনফারেন্সে রুমে এই মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় পালংখালী অধিকার বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার রবিউল হোসাইন সংগঠনের সফলতা ও সাত দফা দাবি নিয়ে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের হুশিয়ারী দিয়ে বলেন, পালংখালী ইউনিয়নের শিক্ষিত যুবকদের নিয়ে গঠিত শতভাগ অরাজনৈতিক সংগঠন অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি অবহেলিত উখিয়া-টেকনাফের সর্বস্থরের অধিকার বঞ্চিত মানুষের অধিকার আদায় না হলে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চালিয়ে যাব।

আমরা নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে যাচ্ছি, অনিয়ম, টেন্ডারবাজী বা টাকার বিনিময়ে চাকুরী দেয়ার প্রশ্নই উঠে না। যদি কোন সদস্য বা শুভাকাঙ্ক্ষী অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি, পালংখালী অজান্তে চাকুরী দেয়ার নামে টাকা নেয় তাহলে সাংগঠনিকভাবে শাস্তির আওতায় এনে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে এবং আইনগতভাবে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
উখিয়া উপজেলায় রত্নাপালং-কোটবাজার কেন্দ্রিক যে অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি হয়েছে আমরা তাদের সমর্থন করি এবং তাদের কাছেই আমরা অনুপ্রেরণা পেয়েছি। আমাদের সকলের লক্ষ্য উদ্দেশ্য অভিন্ন। কয়েকটি অনলাইন পোর্টালে আমাকে এবং অবহেলিত পালংখালী ইউনিয়নের বঞ্চিত জনগোষ্ঠীর অধিকার আদায়ের একমাত্র সংগঠন অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি সম্পর্কে যে তথ্য প্রচার করা হয়েছে তা মোটেও সত্য নয়।

ভবিষ্যত পরিকল্পনা:
১. মিয়ানমার প্রত্যাবাসনের জন্য রোহিঙ্গাদের উৎসাহিত করতে এনজিওদের বিশেষ কর্মসূচি নিতে হবে।
২. রোহিঙ্গা প্রোগ্রামে চাকরির নিয়োগে স্থানীয়দের (উখিয়া-টেকনাফ) ৭০% কোটা নিশ্চিত করতে হবে।
৩. এনজিও/ আইএনজিওর বরাদ্দেরন ৩০% ব্যয়ের সঠিক বাস্তবায়ন ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে হবে।
৪. শুধুমাত্র উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলাকে ক্ষতিগ্রস্ত হোস্ট কমিউনিটি হিসেবে ঘোষণা করতে হবে।
৫. পালংখালী ইউনিয়ন তথা উখিয়া উপজেলাকে আধুনিক মানের হাসপাতাল নির্মাণ করতে হবে এবং ২৪ ঘন্টা ফ্রি এম্বুলেন্স সার্ভিসের ব্যবস্থা করতে হবে।
৬. রোহিঙ্গা অধ্যুষিত ক্যাম্প) এলাকায় যারা সামাজিক বনায়ন হারিয়েছে তাদের ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।
৭. রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকায় এনজিওর চাকরির নিয়োগে স্থানীয়দের/হোস্ট কমিউনিটির ৭০% কোটা নিশ্চিত করতে হবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন অধিকার বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য সচিব, আব্দুল গফুর নান্নু, সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক তাহিজুল আক্তার জুয়েল, কামাল হোসেন, নুরুল কবির, মাহবুব আলম চৌধুরী, শাহাদাত হোসেন, রিদুয়ানুল আজিজ, সদস্য, জয়নুল আবেদিন, আয়াত উল্লাহ এবং উখিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি সায়েদ মোহাম্মদ আনোয়ার ও সহ-সভাপতি হুমায়ুন কবির জুশান, সাধারণ সম্পাদক কমরুদ্দিন মুকুল, সাহিত্য সংস্কৃতির ও প্রকাশনা সম্পাদক মাহমুদ হক বাবুল, নির্বাহী সদস্য ফারুক আহমেদ, ওবায়দুল হক চৌধুরী আবু, নুর মোহাম্মদ সিকদার, সদস্য মোহাম্মদ ইব্রাহিম মোস্তফা, এম ফেরদৌস ওয়াহিদ, শফিকউল শাহিন সহ প্রমুখ।

পাঠকের মতামত: