কক্সবাজার, রোববার, ২৮ নভেম্বর ২০২১

পোষাক খুলে এ কেমন প্রতিবাদ!

মাত্র গত সপ্তাহে আকাশপথে যাত্রা শুরু করেছে ইতালির জাতীয় বিমান সংস্থা আইটিএ এয়ারওয়েজ। কিন্তু নতুন এই বিমানসংস্থার সবকিছু ঠিকঠাক না থাকায় প্রতিবাদের অভিনব পন্থা বেছে নিয়েছেন আইটিএর কর্মীরা। চাকরি খুইয়ে এবং বেতন কেটে নেয়ার কারণে আল-ইতালিয়ার ক্ষুব্ধ অন্তত ৫০ জন ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্ট নিজেদের পোশাক খুলে অভিনব প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছেন।

আল-ইতালিয়ার কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর আইটিএ এয়ারওয়েজ সেটি অধিগ্রহণ করেছে। এর ফলে ইতালির জাতীয় বিমান পরিবহন সংস্থা হিসেবে কার্যক্রম শুরু করেছে আইটিএ এয়ারওয়েজ।

প্রায় ২ হাজার বছর ধরে ইতালির রোমে ক্ষমতার কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত ক্যাম্পেদোগলিও স্কয়ারে আল-ইতালিয়ার ৫০ জন ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্ট আল-ইতালিয়ার পোশাক খুলে ফেলেন। এ সময় তারা ‌‌‘আমরা আল-ইতালিয়া’ বলে স্লোগান দেন।

তবে শুধুমাত্র চাকরি হারানোর কারণে যে তারা এই অভিনব প্রতিবাদ করেছেন বিষয়টি তেমন নয়, বরং আইটিএ এয়ারওয়েজে আল-ইতালিয়ার কর্মীদের সবার চাকরি না হওয়ায় তারা এই প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছেন।

দেশটির বিমান কর্মীদের ইউনিয়ন বলছে, আল-ইতালিয়ার যে কর্মীদের আইটিএ এয়ারওয়েজে চাকরি হয়েছে; তাদের বেতন কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। আইটিএ এয়ারওয়েজের একজন ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্ট সিএনএনকে বলেছেন, বেতন হ্রাসের পাশাপাশি অনেকে জ্যেষ্ঠতাও হারিয়েছেন এবং তারা কোথায়, কখন দায়িত্ব পালন করবেন সেবিষয়েও আগে থেকে কিছু জানানো হয়নি।

এর আগে, আইটিএর প্রেসিডেন্ট আলফ্রেডো আলতাভিল্লা কর্মীদের কর্মসূচির হুমকিকে ‌‘জাতীয় লজ্জা’ বলে অভিহিত করেন। চলতি মাসের শুরুর দিকে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ইল ফাত্তো কুইনটিদিয়ানোকে তিনি বলেন, চুক্তির বিষয়ে দর কষাকষি শেষ হয়েছে।

ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্স বলছে, বন্ধ হয়ে যাওয়া বিমান সংস্থা আল-ইতালিয়ার ১০ হাজার কর্মীর মধ্যে মাত্র ২ হাজার ৮০০ জনকে নিয়োগ দিয়েছে আইটিএ এয়ারওয়েজ। এছাড়া আল-ইতালিয়ার ১১০টি বিমানের ৫২টি কিনে নিয়েছে তারা। খবর সিএনএন, রয়টার্সের।

পাঠকের মতামত: