কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

গত ২১শে ফেব্রুয়ারী কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় “ইয়াবার ছোঁয়ায় কোটিপতি এখন আঞ্জুমান পাড়ার মঞ্জুর” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি আমার দৃষ্টি গোচর হয়েছে। উল্লেখিত সংবাদের সাথে বাস্তবতার কোন মিল নেই। সংবাদটি সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত ও মানহানিকর। মূলত এলাকার একটি চক্র দীর্ঘদিন ধরে আমার বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছে। ওই চক্রটি আমার যাতে এলাকায় মান-ক্ষুন্ন হয় তার বিরুদ্ধে নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে।

আসলে আমি কোন দিন ইয়াবা ব্যবসার সাথে অতিতেই জড়িত ছিলাম না এবং বর্তমানেও জড়িত নেই। ইয়াবা ব্যবসাতো দূরের কথা এলাকায় যারা ইয়াবা ব্যবসা করে থাকে সব সময় তাদের বিরুদ্ধে অবস্থান করি বিধায় ওই চক্রটি আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ দিয়ে নানান ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে।

এছাড়াও সংবাদে উল্লেখ রয়েছে আমার নাকি রোহিঙ্গাসহ একাধিক সিন্ডিকেট আছে এবং আমি নাকি রোহিঙ্গা অপহরণের মুলহোতা।
ওই সিন্ডিকেটের মাধ্যমে নাকি ইয়াবা পাচার, রোহিঙ্গা অপহরণ করে চাঁদা আদায় করি বলে নানানভাবে লিখা হয়েছে। যা সম্পূর্ণ বানোয়াট। এলাকায় বা ক্যাম্পে আমার কোন সিন্ডিকেট নেই।

এছাড়া উক্ত সংবাদে আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে, গোয়েন্দা সংস্থার তদন্ত রিপোর্টে নাকি আমার নামে অনেক অবৈধ সম্পদের হিসাব পাওয়া গেছে ও পালংখালী মোচার খোলা এলাকায় ২০ লক্ষ টাকা দিয়ে ঘর বিটা ও চাষি জমি ক্রয়, জামতলিও ঘর বিটা ক্রয় করেছি এবং আল-আরাফাহ ইসলামি ব্যাংক কোটবাজার শাখার অধীনে নাকি আমার ৫০ লক্ষ টাকা ফিক্সড ডিপোজিট করা আছে। যা আরও একটি ভুয়া তথ্য, কেননা কোটবাজারে আল আরাফাহ ব্যাংকের কোন শাখা নেই। আর আমি চ্যালেঞ্জ করে বলতেছি আল আরাফাহ ব্যাংক সহ বাংলাদেশের যেকোন ব্যাংকে যদি আমার কোনো ডিপোজিট দেখাতে পারে তবে আমাকে যে শাস্তি দিবে তা আমি মাথা পেতে নেব নয়তো যে সাংবাদিক এবং যে সিন্ডিকেট আমার নামে সঠিক তথ্য না নিয়ে আমাকে বেকায়দায় ফেলার জন্য পায়তারা করে মনগড়া সংবাদ পরিবেশন করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নিবো।
এছাড়া কে কোথায় কিভাবে আটক হচ্ছে তা নিয়ে আমাকে জড়িয়ে সংবাদ সাজানোর চেষ্টা করছে এই চক্রটি। যাদের সাথে আমার কোন সম্পর্ক নেই।

আর প্রচার করা নিউজ নিয়ে ইতোমধ্যে আঞ্জুমানপাড়াবাসীর মনে প্রাণে ঘৃনা করা শুরু করেছে পাশাপাশি সাংবাদিকতার মত মহান পেশাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। চ্যালেঞ্জ করে বলতে পারি, আমি সৎ উপার্জনের মাধ্যমে দিনাতিপাত করে আসছি।
সংশ্লিষ্ট প্রশাসন যদি বিষয়টি তদন্ত করতে চায় তাহলে আমি সব সময় তাদের স্বাগত জানাবো। আর এভাবে কোন তথ্য প্রমাণ ছাড়া কেউ কারো বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করা মানে একেবারে ষড়যন্ত্র ছাড়া আর কিছুই নয়। সুতরাং আমরা এই গাঁজাখুরি সংবাদের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও জোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

ভবিষ্যতে আমার বিরুদ্ধে এধরণের এহেন মিথ্যা ও উদ্দেশ্যেমূলক সংবাদ ছাপাইলে আমি আইনগত ব্যবস্থা নিতে বাধ্য থাকিব। সংবাদটি প্রশাসন, এলাকাবাসী সংশ্লিষ্ট কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী
মনজুর আলম
পিতা: মৃত আব্দুস সালাম
আঞ্জুমান পাড়া, থাইংখালী, উখিয়া

পাঠকের মতামত: