কক্সবাজার, বুধবার, ১৮ নভেম্বর ২০২০

ভাই-বোনকে হত্যার ঘটনায় মামা আটক

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় নিজ বাড়ির খাটের নিজ থেকে কামরুল হাসান (১০) ও শিফা আক্তার (১৪) নামে দুই ভাই-বোনের রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় ‘সন্দেহভাজন অভিযুক্ত’ বাদল মিয়াকে (৩০) আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার দিবাগত মধ্যরাতে ঢাকার সবুজবাগ থানা এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। আটক বাদল মিয়া কুমিল্লা জেলার হোমনা উপজেলার খুদে-দাউদপুর গ্রামের বাসিন্দা। তিনি সম্পর্কে নিহত কামরুল ও শিফার মামা।

স্থানীয় পুলিশ জানায়, ওই ঘটনার সময় নিহতদের মা-বাবা ও মামা বাদল মিয়া ওই বাড়িতে ছিলেন। হত্যাকাণ্ডের পর থেকেই বাদল পলাতক ছিলেন। বাদল গত প্রায় আড়াই মাস ধরে বোনের বাড়িতে ছিলেন। তিনি সৌদি আরবে থাকতেন। ঘটনার পর বাদল মিয়াকে আটক করতে ঢাকা ও মুন্সিগঞ্জে অভিযান চালায় পুলিশ।

এই ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নবীনগর সার্কেল) মো. মকবুল হোসেন জানান, আটক বাদল মিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এর আগে মঙ্গলবার নিহতদের বাবা-মাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। তবে এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি।

উল্লেখ্য, গত সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে নিজ বাড়ির খাটের নিচ থেকে কামরুল ইসলাম (১০) ও মেয়ে শিফা আক্তারের (১৪) রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। বাঞ্ছারামপুর উপজেলার ছলিমাবাদ গ্রামের কামাল উদ্দিনের ছেলে কামরুল ইসলাম (১০) ও মেয়ে শিফা আক্তার (১৪)। ওইদিন বিকেল কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না কামরুল ও শিফার। এ নিয়ে এলাকায় মাইকিংও করা হয়। পুলিশকেও ঘটনাটি জানানো হয়। পরে রাতে নিজ বাড়ির দুই রুমের দুই খাটের নিচে কামরুল ও শিফার রক্তাক্ত মরদেহ দেখতে পান পরিবারের লোকজন।

পাঠকের মতামত: