কক্সবাজার, শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১

ভাসানচরের পথে রোহিঙ্গারা; নতুন আশ্রয় নিয়ে উচ্ছ্বাস

কক্সবাজার থেকে ভাসানচরের পথে রোহিঙ্গারা। প্রথম দফায় সেখানে ঠাঁই হচ্ছে এক হাজার জনের বেশি। উখিয়া থেকে সড়কপথে চট্টগ্রাম এরপর নৌপথে নেয়া হচ্ছে ভাসানচরে। নতুন আশ্রয় নিয়ে খুশি রোহিঙ্গারা। এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে সহযোগিতার জন্য জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক মহলের প্রতি আহবান জানিয়েছে এনজিও ফোরাম।

প্রথম দলটিকে নিয়ে আসা হয় চট্টগ্রামে। কারণ নৌপথে ভাসানচরে যাবার এটাই মূলরুট।

প্রথমদফায় কত রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে নেয়া হবে তা নিশ্চিত করে জানা না গেলেও এ সংখ্যা ৩ থেকে ৫ হাজার হবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্র।

এর আগে দিনভর কক্সবাজারের উখিয়া ডিগ্রি কলেজ মাঠে নিবন্ধন শেষে রোহিঙ্গাদের নিয়ে একে একে যাত্রা করে বাস। পুরো কার্যক্রম নির্বিঘ্ন করতে নেয়া হয় কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

মিয়ানমার থেকে পালিয়ে এসে উখিয়া-টেকনাফে আশ্রয় নেয়ার ৩৯ মাস পর ভাসানচরে স্থানান্তর হচ্ছে রোহিঙারা। এজন্য যারা স্বেচ্ছায় যেতে রাজি কেবল তাদেরই তালিকাভুক্ত করে কর্তৃপক্ষ। পুরো বিষয়টি নিয়ে কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিক কিছু না জানালেও ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের নেয়ার উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে এনজিও ফোরাম।

ভাসানচরে একলাখ রোহিঙ্গাকে সাময়িকভাবে রাখার কথা। এজন্য ২৩শ’ কোটি টাকা খরচ করে সেখানে তৈরি করা হয়েছে ১২০টি ক্লাস্টার হাউস। সেইসাথে আছে আধুনিক সব সুযোগ সুবিধাও।

পাঠকের মতামত: