কক্সবাজার, শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১

মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানে বিএনপির উদ্বেগ

মঙ্গলবার (০২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক বিবৃতিতে বলেন, গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সংসদ বাতিল করে মিয়ানমারের সেনাপ্রধানের নেতৃত্বে রাষ্ট্রক্ষমতা দখলের অতি সাম্প্রতিক ঘটনায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছে।

তিনি বলেন, গণতন্ত্র, সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে রাষ্ট্রক্ষমতার পরিবর্তন, আইনের শাসন ও মৌলিক মানবাধিকার অগ্রাহ্য করে জনগণের ওপর কর্তৃত্ববাদী শাসনের নির্মম শিকার বাংলাদেশের জনগণের অভিজ্ঞতার প্রেক্ষিতে বিএনপি মনে করে যে, দীর্ঘ আন্দোলনের মাধ্যমে মিয়ানমারের জনগণ গণতান্ত্রিক অধিকার ও শাসনব্যবস্থা অর্জন করেছিলেন তা কেড়ে নেওয়া অনৈতিক ও অগ্রহণযোগ্য। জনগণের দ্বারা নির্বাচিত, জনগণের কাছে দায়বদ্ধ ও জবাবদিহিতার রাজনৈতিক সংস্কৃতির অনুপস্থিতি প্রতিবেশী মিয়ানমারের জনগণ কতটা ক্ষতিগ্রস্ত হবে তা বাংলাদেশের ভুক্তভোগী জনগণ ভালভাবেই অনুভব করে বিধায় বাংলাদেশের জনগণ মিয়ানমারে গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থা অব্যাহত দেখতে চায়।

মির্জা ফখরুল বলেন, গত কয়েক বছর ধরে মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত কয়েক লক্ষ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অবস্থান করলেও তাদের নিরাপদ প্রত্যাবর্তনের কোনো ব্যবস্থাই বাংলাদেশ সরকার করতে পারেনি। নতুন এই রাজনৈতিক প্রেক্ষিতে বিষয়টি যাতে আরও দুষ্কর কিম্বা জটিল না হয়ে পড়ে সে ব্যাপারে দ্রুত কার্যকর কূটনৈতিক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানাচ্ছি।

সোমবার (০১ ফেব্রুয়ারি) মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের একদিন পর সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন থাকা বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নামে এই বিবৃতি দেওয়া হলো। বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন দলটির সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু।

পাঠকের মতামত: