কক্সবাজার, বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১

মিয়ানমার ইস্যুতে নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক শুরু

মিয়ানমার ইস্যুতে জরুরি বৈঠক শুরু করেছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। বৈঠকে সামরিক অভ্যুত্থানের পর দেশটির বেসামরিক কর্তৃপক্ষের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের আহ্বান জানানোর এক খসড়া প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা হবে। মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় রাত নয়টায় ভিডিওকনফারেন্সে রুদ্ধদ্বার এই আলোচনা শুরু হয়েছে। ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি’র প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

সোমবার (১ ফেব্রুয়ারি) ভোরে মিয়ানমারের ক্ষমতা দখল করে দেশটির সেনাবাহিনী। এদিন অভিযান চালিয়ে রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চি এবং ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের আটক করা হয়। রাজধানী নেপিডো ও প্রধান শহর ইয়াঙ্গুনের রাস্তায় রাস্তায় টহল দিতে শুরু করে সামরিক বাহিনীর সদস্যরা। দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়। এরপর সকালে আনুষ্ঠানিকভাবে অভ্যুত্থানের খবর নিশ্চিত করে সেনাবাহিনী।

মিয়ানমারে বেআইনিভাবে আটক সকলকে অবিলম্বে মুক্তি দিতে সেনা সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে খসড়া প্রস্তাবে। নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবটি প্রস্তুত করেছে যুক্তরাজ্য। এক বছরের জন্য জারি করা জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার করে নেওয়ার আহ্বান রয়েছে এতে। সব পক্ষকে গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ অনুসরণের আহ্বান জানানোর প্রস্তাবে অবশ্য, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা বলা নেই।

প্রস্তাবটি নিরাপত্তা পরিষদে পাশ হতে হলে চীনের সমর্থন পেতে হবে। কিন্তু জাতিসংঘে দেশটির প্রধান সমর্থক বেইজিং। আর নিরাপত্তা পরিষদে ভেটো ক্ষমতা রয়েছে চীনের। ২০১৭ সালে রোহিঙ্গা সংকটের সময় নিরাপত্তা পরিষদের সব উদ্যোগে ভেটো দেয় চীন। বেইজিংয়ের দাবি রোহিঙ্গাদের ওপর সামরিক অভিযান মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ ইস্যু।

নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে মিয়ানমারের পরিস্থিতি বর্ণনা করবেন নেপিদোতে নিয়োগকৃত জাতিসংঘের দূত এবং সুইডিশ কূটনীতিক ক্রিস্টিন শার্নার বার্গেনার।

এর আগে সর্বশেষ গত বছরের সেপ্টেম্বরে মিয়ানমার ইস্যুতে নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই আলোচনাও ছিলো রুদ্ধদ্বার।

পাঠকের মতামত: