কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১

যুক্তরাষ্ট্রে শীতকালীন ঝড়ে ২১ জনের প্রাণহানি

যুক্তরাষ্ট্রের বিশাল অঞ্চলজুড়ে বয়ে যাওয়া শীতকালীন ঝড়ে অন্তত ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের লাখ লাখ মানুষ বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের শিকার হয়েছেন ও দেশটির দক্ষিণপূর্বাঞ্চলে বেশ কয়েকটি প্রাণঘাতী টর্নেডো বয়ে যাচ্ছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, দেশটির এমন অনেক অঞ্চলে মারাত্মক হিমশীতল বাতাস, বরফ ও তুষারপাতের ঘটনা ঘটেছে যেখানে জমাট বাধা এমন পরিস্থিতি খুব কমই দেখা যায়।

দেশটির ৭৩ শতাংশেরও বেশি এলাকা তুষারের নিচে ঢাকা পড়েছে এবং ১৫ কোটিরও বেশি লোক শীতকালীন ঝড়ের সতর্কতার মধ্যে আছেন বলে মঙ্গলবার জানিয়েছে দেশটির জাতীয় আবহাওয়া বিভাগ (এনডব্লিউএস)।

রয়টার্স জানিয়েছে, টেক্সাস, লুইজিয়ানা, কেনটাকি ও মিজৌরিতে অন্তত ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে টেক্সাসের সুগার ল্যান্ডে একটি বাড়িতে লাগা আগুনে নিহত চারজনও আছেন। পুলিশ ও স্থানীয় গণমাধ্যমের ভাষ্য অনুযায়ী, বিদ্যুৎবিহীন অবস্থার মধ্যে সুগার ল্যান্ডের ওই বাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটে।

মঙ্গলবার রাতে টেক্সাস আরেকটি বরফশীতল ঝড়ের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে বলে সতর্ক করা হয়েছে। প্রবল ঠাণ্ডার মধ্যে বিদ্যুতের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় রাজ্যটির বিস্তৃত এলাকাজুড়ে বিদ্যুৎ বিপর্যয় ঘটেছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, টেক্সাস, লুসিয়ানা, আলাবামা ও নিউ মেক্সিকোর ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া তুষার ঝড়ে সেসব রাজ্যে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। সেখানকার মহাসড়কগুলোতে বরফ জমে দুর্ঘটনা ঘটছে।

দেশটির ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিসের আবহাওয়াবিদ চার্লস রস সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘হিউস্টনে বরফ পড়ছে। পেনসিলভানিয়াতে বৃষ্টি হতে পারে।’

গত ৩২ বছরে এই প্রথম অস্টিনে মাইনাস আট ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে এবং ৫৫ বছর পর সেখানে এক রাতে ছয় দশমিক চার ইঞ্চি পুরু বরফ পড়েছে।

টেক্সাসে হাজার হাজার মানুষ বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়ায় সরকারি কর্মকর্তারা জনগণকে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

মন্টানা থেকে নিউ মেক্সিকো ও মিনেসোটা থেকে লুসিয়ানা পর্যন্ত ১৪টি রাজ্যে বিদ্যুৎ সরবরাহকারী সংস্থা সাউথওয়েস্ট পাওয়ার পুল তাদের গ্রাহকদের ঝড়ের কারণে বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যাহত হওয়ার কথা জানিয়েছে।

এদিকে তুষার ঝড়ের কারণে দক্ষিণাঞ্চলের রাজ্যগুলোতে করোনা ভ্যাকসিন দেওয়ার কেন্দ্রগুলো বন্ধ রাখা হয়েছে।

এ ছাড়া টেক্সাস, আলাবামা, ওকলোহামা, কানসাস, মিসিসিপি ও অরিগনে আবহাওয়া সংক্রান্ত জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। এসব অঞ্চলের প্রায় দুই লাখ মানুষ বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় রয়েছে।

দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন মঙ্গলবার দুর্গত এলাকায় অতিরিক্ত জরুরি সহায়তা দেওয়ার অঙ্গীকার করেছেন।

পাঠকের মতামত: