কক্সবাজার, বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০

রোহিঙ্গারা কাল চলে গেলে ঢাকা খুশি

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, মার্কিন উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ঢাকা সফরে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে আলোচনা হবে। বাংলাদেশের একমাত্র চাওয়া রোহিঙ্গাদের দ্রুত প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করা।মন্ত্রীর কাছে প্রশ্ন ছিল, মার্কিন উপ পরারাষ্ট্রমন্ত্রীর ঢাকা সফরে ইন্দো প্যাসিফিকের সামরিক অধ্যায়ে বাংলাদেশ যুক্ত হবে কিনা, বৈঠকে এ নিয়ে কোন আলোচনা হবে কিনা?

জবাবে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বলেন, আমরা ইন্দো প্যাসিফিকের সামরিক অধ্যায়ে যুক্ত হতে আগ্রহী নই। তারা আমাদের কাছে অস্ত্র বিক্রি করতে চায়, আমরা চাই শান্তি। মন্ত্রীসভার বৈঠক থেকে নিজ দপ্তরে ফিরে উপস্থিত সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন ড. মোমেন।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আগামী ২২শে অক্টোবর আন্তর্জাতিকভাবে রোহিঙ্গা বিষয়ক একটি ভার্চ্যুয়াল সন্মেলন হতে যাচ্ছে। পশ্চিমা দুনিয়ার প্রতিনিধিরা এই সন্মেলন আয়োজন করছেন।

সেখানে তাদের চাওয়া হচ্ছে, রোহিঙ্গাদের টেকসই সহযোগিতা নিশ্চিত করতে দশ বছর মেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণের চেষ্টা।

বাংলাদেশ দশ বছর মেয়াদি কোন পরিকল্পনা চায় না। ঢাকা চায় কাল রোহিঙ্গা চলে গেলে বাংলাদেশ খুশি।

এছাড়াও বেইজিংয়ের উদ্যোগে পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ে ত্রিদেশীয় একটি বৈঠক আয়োজনের প্রস্তাব রয়েছে। বাংলাদেশ রাজি তবে শর্ত হচ্ছে, ঐ বৈঠকে অংসান সুচির উপস্থিতি নিশ্চিত করতে হবে।

পাঠকের মতামত: