কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অস্ত্র সরবরাহ: সেই মেডিক্যাল রিপ্রেজেন্টেটিভ গ্রেপ্তার

কক্সবাজারের টেকনাফে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ইয়াবার বিনিময়ে অস্ত্র সরবরাহকারী চক্রের এক সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তার নাম মো. নাসির উদ্দিন। পেশায় তিনি মেডিক্যাল রিপ্রেজেন্টেটিভ। গতকাল রবিবার সকালে চট্টগ্রামের আনোয়ারা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আদালত নাসিরের ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

মো. নাসির উদ্দিন অর্গানিক হেলথ কেয়ার নামক একটি ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানিতে মেডিক্যাল রিপ্রেজেন্টিটিভ (এমআর) হিসেবে আনোয়ারা থানা এলাকায় ওষুধ সরবরাহ করতেন। সে সুবাদে তিনি ইয়াবা কারবারে যুক্ত হন।

পুলিশ সূত্র জানায়, গত ৫ নভেম্বর আবদুর রাজ্জাক ও মো. কামাল নামের দুই ব্যক্তিকে একটি বিদেশি পিস্তলসহ গ্রেপ্তার করা হয় নগরীর নতুন ব্রিজ এলাকায়। ওই অস্ত্রের উৎসের সন্ধানে নেমে নগরীর বাকলিয়া থানার পুলিশ জানতে পারে, তারা কক্সবাজার টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ইয়াবা ট্যাবলেট সংগ্রহ করে দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করে আসছিল। ইয়াবা বিক্রির টাকা দিয়ে অবৈধ অস্ত্র সংগ্রহ করে সেগুলো ক্যাম্পের রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের কাছে সরবরাহের করে। আবদুর রাজ্জাক ও কামালের বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলার তদন্তে নেমে পুলিশ একটি সংঘবদ্ধ ইয়াবা পাচার চক্রের সন্ধান পায়। যার নেটওয়ার্ক মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় বিস্তৃত।

কামাল ও আবদুর রাজ্জাকের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে গত ১৩ নভেম্বর নগরীর চান্দগাঁয়ের নিউ চান্দগাঁ আবাসিক এলাকা বাসা থেকে মো. ফোরকান ও তার স্ত্রী শামীম আরা সুমিকে ২২ হাজার ২০০ পিস ইয়াবা ও নগদ ৮ লাখ ৮৩ হাজার ৫৪২ টাকাসহ গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাদের দেওয়া তথ্যমতে মেডিক্যাল রিপ্রেজেন্টিটিভ নাসির উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন বলেন, নাসির মেডিক্যাল রিপ্রেজেন্টেটিভের চাকরিকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করতেন। তিনি ওষুধের ব্যাগে করে সবার সন্দেহের চোখ এড়িয়ে ইয়াবা ট্যাবলেট চট্টগ্রাম শহরে ফোরকানের কাছে পৌঁছে দিতেন। ফোরকান সেগুলো বিক্রি করে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অবৈধ অস্ত্র জোগান দিতেন। এ চক্রের অন্য পলাতক সদস্যদের গ্রেপ্তার করতে নাসিরকে সাত দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। আমাদেরসময়

পাঠকের মতামত: