কক্সবাজার, শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ফের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৪

উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্পে দু’গ্রুপ রোহিঙ্গাদের মধ্যে ফের সংঘর্ষে ৪ জন নিহত হয়েছে।

মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় এ সংঘর্ষ হয় বলে জানা গেছে।

জানা যায়,  আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র কুতুপালং ক্যাম্পে নতুন ও পুরাতন রোহিঙ্গাদের মধ্যে গত কয়েকদিন ধরে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা চলছে। তারই ধারাবাহিকতা গত ৪ ও ৫ অক্টোবর ৩ জন রোহিঙ্গা হত্যা করা হয়েছে। আর মঙ্গলবার সকালে র‌্যাব অভিযান চালিয়ে ৯ জন রোহিঙ্গা ডাকাতকে অস্ত্র ও গুলিসহ আটক করা হয়।

রোহিঙ্গারা জানিয়েছেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ইয়াবা পাচার, চাঁদাবাজি, অপহরণ নিয়ে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী মুন্না বাহিনীর সাথে আরেক সন্ত্রাসী বাহিনীর দীর্ঘদিন ধরে সংঘর্ষ চলে আসছিলো।

তারই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উভয় গ্রুপ আবার সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। দীর্ঘ ১ ঘন্টা উভয় গ্রুপের মাঝে থেমে থেমে গোলাগুলি হয়। ভারী অস্ত্রের পাশাপাশি দেশীয় অস্ত্র নিয়েও উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এই সময় ৪ জন নিহত। নিহতদের মধ্যে সন্ত্রাসী মুন্নার ভাই মাহমুদ উল্লাহ ও রয়েছে।

এদিকে ঘটনাস্থলে সেনাবাহিনী, র‌্যাব, পুলিশ, এপিবিএন সদস্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের দায়িত্বে থাকা আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন এপিবিন সূত্রে ৪ জন নিহত হওয়ার ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ ব্যাপারে উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ভারপ্রাপ্ত)  আহমেদ সঞ্জুর মোরশেদকে ফোন করা হলে তিনি রিসিভ না করায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, এ পর্যন্ত ৪ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তন্মধ্যে একজনের গলাকাটা ও অপর ৩ জন গুলিবিদ্ধ লাশ। আনসার সদস্য আহত হয়েছে বলে জানা গেছে । এদিকে দফায় দফায় সংঘর্ষ অব্যাহত রয়েছে বলে বিভিন্ন নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে স্থানীয় বাসিন্দা মোহাম্মদ রশিদ জানান, দফায় দফায়  সংঘর্ষের  ফলে আমাদের জীবনযাত্রা স্থিমিত হয়ে থেমে যাওয়ার উপক্রম দেখা দিয়েছে। ঘরের ছোট ছোট ছেলে মেয়েরা ভয়ে দিন কাটাচ্ছে।

পাঠকের মতামত: