কক্সবাজার, শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০

রোহিঙ্গা নিপীড়নের তদন্ত করবে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী

রোহিঙ্গাদের ওপর ২০১৭ সালে এবং এর আগে ব্যাপক আকারে নির্যাতনের অভিযোগের তদন্ত করবে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। মঙ্গলবার সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

২০১৭ সালে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে অভিযানে নামে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। এসময় রোহিঙ্গাদের হত্যা, গণধর্ষণ ও বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে সেনা সদস্যরা। রোহিঙ্গাদের ওপর এই নিপীড়নকে জাতিসংঘ ‘জাতিগত নিধন’ বলে উল্লেখ করেছে। মিয়ানমারের সেনাবাহিনী অবশ্য গণহত্যার অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

মঙ্গলবার দেওয়া বিবৃতিতে সেনাবাহিনী প্রথমবারের মতো রোহিঙ্গাদের ওপর ব্যাপক নির্যাতনের ‘সম্ভাবনার’ বিষয়টি স্বীকার করেছে।

এতে বলা হয়েছে, সেনাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগের সেনাবাহিনী পরিচালিত জাজ অ্যাডভোকেট জেনারেলের দপ্তর সরকার সমর্থিত কমিশনের একটি প্রতিবেদন পর্যালোচনা করছে এবং তদন্তের ব্যাপ্তি বাড়িয়েছে ।  ‘২০১৬ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত উত্তর রাখাইন অঞ্চলে সম্ভাব্য ব্যাপক সহিংসতার অভিযোগ তদন্ত’ করছে দপ্তর।

বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী মংড়ু জেলায় ২০১৭ সালে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানের উল্লেখ করে সেনাবাহিনী বলেছে, ‘বিস্তৃত তদন্তে মংড়ুর গ্রামগুলোর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অভিযোগও অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে।’

পাঠকের মতামত: