কক্সবাজার, শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের দাবিতে মাঠে নামছে ‘আমরা কক্সবাজারবাসী’

রোহিঙ্গা দ্রুত প্রত্যাবাসনের দাবিতে মাঠে নামার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ‘আমরা কক্সবাজারবাসী’ সংগঠন।

দাবি বাস্তবায়ন না হলে লাগাতার কর্মসূচী দেয়ার ঘোষণাও দিয়েছেন সংগঠনের নেতারা। তারই অংশ হিসেবে আগামী সোমবার উখিয়ায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করবে কর্মসূচী পালন করবে সংগঠনটি।

মঙ্গলবার দুপুরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠের মাধ্যমে এসব সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন নেতারা।

এ সময় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আলী, সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দীন ও সাংগঠনিক সম্পাদক মহসীন শেখ।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, দেশী-বিদেশী রাষ্ট্রের অনুরোধ এবং মানবিক কারণে বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেন। এরপর শুরুতেই ওসব রোহিঙ্গারা প্রায় ৭ হাজার একর বনভূমি ও বিভিন্ন প্রজাতির জীবজন্তুর আবাসস্থল ধ্বংস করে। যা এ অঞ্চলের পরিবেশ ও জীববৈচিত্র মারাত্মক হুমকীর সম্মূখিন হয়ে পড়েছে।

রোহিঙ্গাদের অপরাধ চিত্র তুলে ধরে বলা হয়, রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে আশ্রয় পাওয়ার পর থেকে বিশ্বের পর্যটন রাজধানী খ্যাত কক্সবাজারকে অপরাধের স্বর্গরাজ্য হিসেবে গড়ে তুলে। তারা ক্যাম্পে অস্ত্র তৈরীর কারখানাও গড়ে তুলেছে। এসব অবৈধ অস্ত্র বিভিন্ন স্থানে সরবারহ সহ নানাবিধ অপরাধ কর্মকান্ডের জন্ম দিচ্ছে। তারা স্থানীয় ও নিজেদের লোকদের হত্যা, ধর্ষণ, স্থানীয়দের অপহরণ পূর্বক মুক্তিপণ আদায়, ডাকাতী, ছিনতাই, মানবপাচার, ইয়াবা সহ ভয়ংকর মাদক পাচার এবং স্থানীয়দের ঘর-বাড়িতে লুটপাট ও দখল ছাড়াও প্রতিনিয়ত বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ড সৃষ্টি করছে। সর্বোপরী রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলো যেনো মাদক ও অস্ত্রের নিরাপদ স্থানে পরিণত হয়েছে। ওখান থেকেই কক্সবাজার জেলা সহ সারাদেশে মাদক ও অস্ত্র পাচার করছে আশ্রিত রোহিঙ্গারা।
অভিযোগ রয়েছে, রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ছাড়াও দখল-বেদখল ও হত্যাকান্ডে ভাড়াটিয়া হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে। ইতোমধ্যে বহুবার অভিযান চালিয়ে রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে নানা ধরণের মাদক ও দেশীবিদেশী অস্ত্র উদ্ধার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

দেশের নিরাপত্তা ইস্যু তুলে ধরে বলা হয়, রোহিঙ্গারা ডাটাবেজ এর আওতায় না থাকা এবং এ অঞ্চলের স্থানীয় মানুষের সঙ্গে ভাষাগত মিল থাকার সুযোগে তারা প্রায়-প্রতিদিনই রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে বের হয়ে অবাধে বিচরণ করছে কক্সবাজারসহ সারাদেশের আনাচে-কানাচে। তারা এখানকার শ্রমবাজার দখলসহ বিভিন্ন স্থানে জমি ক্রয় করে গড়ে তুলছে স্থাপনা। একইভাবে কৌশলে নাগরিকত্ব লাভ করে বাংলাদেশের পাসপোর্ট ও জাতীয়তা সনদপত্র সংগ্রহ করে মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পাড়ি দিয়ে সেখানেও অপরাধ কর্মকান্ড সংগঠিত করছে। এতে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি চরমভাবে ক্ষুন্ন হচ্ছে।

পাঠকের মতামত: