কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১

রোহিঙ্গা সুরক্ষায় নির্দেশনা অনুযায়ী আদালতে মিয়ানমারের দ্বিতীয় প্রতিবেদন

নিজ দেশের রোহিঙ্গাদের সুরক্ষায় পূর্বনির্দেশনা অনুযায়ী জাতিসংঘের বিচারিক আদালতের কাছে দ্বিতীয় প্রতিবেদন জমা দিয়েছে মিয়ানমার। যদিও প্রতিবেদনের বিস্তারিত এখনও প্রকাশ করা হয়নি। তবে শুধু প্রতিবেদন জমা দেওয়া যথেষ্ট নয় উল্লেখ করে রোহিঙ্গাদের অধিকার রক্ষায় আরও শক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক আইনজীবীরা। সামরিক বাহিনীর নির্যাতনের লাগাম টানার পাশাপাশি মানবাধিকার সংশোধনের আহ্বান জানিয়েছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

রোহিঙ্গা গণহত্যা ও মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে গত বছরের নভেম্বরে আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে গাম্বিয়া। এর পরিপ্রেক্ষিতে চলতি বছরের জানুয়ারিতে রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা দিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি আদালতের নির্দেশনা বাস্তবায়নের বিষয়ে প্রতি ছয় মাসে প্রতিবেদন জমা দিতে মিয়ানমার সরকারকে আদেশ দেন জাতিসংঘের আদালত। গত মে মাসে প্রথম প্রতিবেদন জমা দেওয়ার পর চলতি মাসে অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনে রোহিঙ্গাদের বাদ দেওয়ার অভিযোগের মধ্যেই এবার দ্বিতীয় প্রতিবেদন জমা দিয়েছে নেইপিদো। যদিও প্রতিবেদনের বিস্তারিত এখনো প্রকাশ করা হয়নি।

আদালতের আদেশ মেনে কেবল প্রতিবেদন জমা দেয়া যথেষ্ট নয় বলছেন আইনজীবীরা। গ্লোবাল জাস্টিস সেন্টারের পরিচালক গ্রান্ট সুবিন আদালতের নির্দেশনা সত্ত্বেও তার কোনো কিছুই বাস্তবায়ন করেনি মিয়ানমার।
গ্লোবাল জাস্টিস সেন্টারের পরিচালক, গ্রান্ট সুবিন বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের অধিকার রক্ষায় ব্যবস্থা নিতে আদালতের আদেশ জারির পর বৈষম্যের মূল কারণ চিহ্নিত করতে মিয়ানমার কোনো পদক্ষেপই নেয়নি। এ কারণে রোহিঙ্গা গণহত্যার ঝুঁকি এখনো রয়ে গেছে।’
মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর অত্যাচার নির্যাতনের বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি মানবাধিকার সংশোধনে নতুন সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। সংস্থাটির এক বিবৃতিতে বলা হয়, মানবাধিকার পরিস্থিতি উন্নয়নে প্রথম মেয়াদে ব্যর্থ হয়েছেন দেশটির স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চি। গণতন্ত্রের জন্য চড়া মূল্য দেয়া অং সান সু চি ও তার দল পুনরায় নির্বাচিত হওয়ায় এই মেয়াদকে গণতন্ত্রের পাশাপাশি মানবাধিকারের জন্য কাজে লাগানোর আহ্বান জানায় অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

পাঠকের মতামত: