কক্সবাজার, শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০

সেপ্টেম্বরেই গণপরিবহন চলাচলে নতুন নিয়ম

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে চলতি বছরের ২৬ মার্চ থেকে বন্ধ হয়ে যায় গণপরিবহন। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর ১ জুন থেকে অর্ধেক আসন ফাঁকা রাখাসহ নানা শর্তে সীমিত আকারে তা চালু হয়। এ সময় বাস-মিনিবাসের ভাড়া ৬০ শতাংশ বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।

সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে এখন চলছে বাস। এসব স্বাস্থ্যবিধির মধ্যে ছিলো দাঁড়িয়ে যাত্রী না নেয়া, সবাইকে মাস্ক পরা এবং এক সিট খালি রেখে যাত্রীদের আসন নেয়া।

তবে আগামী সেপ্টেম্বরের শুরুতেই এসব শর্ত শিথিল করে নতুন নিয়মে বাস চলাচলের অনুমতি দিতে যাচ্ছে সরকার। ১ তারিখ থেকেই এটি কার্যকর হবে।

অপরদিকে পরিবহনমালিক-শ্রমিকেরা ১৬ আগস্ট সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়ে আসন পূর্ণ করে বাস-মিনিবাস চালানোর অনুমতি চান। বিনিময়ে বাড়তি ৬০ শতাংশ ভাড়া না নেয়ার আশ্বাস দেন তারা।

১৯ আগস্ট বিআরটিএর সঙ্গে বৈঠকেও মালিক-শ্রমিকেরা একই দাবি করেন। এরপরই সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয় প্রস্তুতি নেয়।

সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) সূত্র বলছে, এ বিষয়ে সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে সবুজ সংকেত পাওয়া গেছে।

এ বিষয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গণমাধ্যমকে বলেন, সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে আসন পূর্ণ করে বাস-মিনিবাস চালুর অনুমতি দেয়া হচ্ছে। তবে দাঁড়িয়ে কোনো যাত্রী নেয়া যাবে না। যাত্রী ও শ্রমিকদের জন্য মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক।

এছাড়া সব সময় জীবাণুনাষক দিয়ে বাস জীবাণুমুক্ত রাখার কথা যোগ করেন তিনি।

নতুন নিয়মে বাস চালুর অনুমতির বিষয়ে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খোন্দকার এনায়েত উল্যাহ বলেন, সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে যাচ্ছে। এ অবস্থায় বাস-মিনিবাসের অর্ধেক আসন ফাঁকা রাখার কোনো দরকার নেই। এ জন্যই তারা আসন পূর্ণ করে চালাতে চাচ্ছেন।

পাঠকের মতামত: