কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও প্রতিবেদকের বক্তব্য

গত ২৮ জুন কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত অনলাইন নিউজ ভয়েস ওয়ার্ড২৪ ডটকমে “সোনারপাড়ায় অসহায় ব্যক্তির জমি দখলে নিতে বার বার হামলা” শীর্ষক সংবাদটি আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। উল্লেখিত সংবাদের সাথে বাস্তবতার কোন মিল নেই। সংবাদটি সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত।

মূলত আমাদের পৈত্রিক সম্পত্তি ভাগ হয়ে গেলে আমরা ভাইয়েরা যার যার সম্পত্তি বুঝে পেয়ে চাষাবাদ করি। কিন্তু কিছুদিন যেতে না যেতেই আমার আপন বড় ভাই মঞ্জুর আলমের কু-দৃষ্টি পড়ে। তার ধারাবাহিকতায় তিনি বারবার আমার সম্পদ হাতিয়ে নেওয়ার জন্য নানা কৌশল করে আসছে। এইছাড়াও তিনি উদ্দেশ্যে হাসিল করতে না পেরে আমাদের বিরুদ্ধে নানা ধরনের অপপ্রচার চালাচ্ছেন।

তিনি সংবাদে উল্লেখ করেছেন তাকে নাকি একাধিকবার হামলা করে ব্যাপক মারধর এবং প্রাণনাশের হুমকি দেওয়াসহ টাকা ছিনতায় করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ বানোয়াট।

গত ২৬ জুন (শুক্রবার) ঘটনাস্থলে তদন্তে আসেন উখিয়া থানার উপপরিদর্শক খালেদ। তদন্তের সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম। তারা বিষয়টি তদন্ত করে বিস্তারিত ডকুমেন্টস দেখেন এবং আগামী ৩ জুলাই (শুক্রবার) মীমাংসার জন্য উখিয়া থানায় এ নিয়ে আমাদের সাথে পূণরায় বসার তারিখ দেন।

তিনি পুলিশ থাকাকালীন সময়ে অগোচরে ভিডিও করেন তা পরে আমরা জানতে পারলে সেটার জন্য জানতে চাইলে উল্টো তিনি আমাদের মারার হুমকি দেন। কিন্তু তিনি উল্লেখিত সংবাদে পুলিশ কর্মকর্তা চলে যাওয়ার পরই সোনারপাড়া বাজারের উপর প্রকাশ্যে আবুল মনজুরের উপর হামলা করে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার যে কথা বলেছেন তা সম্পূর্ণ ভুয়া। যা শাক দিয়ে মাছ ঢাকার চেষ্টা।

তাই আমি প্রশাসনের কাছে এর সুষ্ঠু বিচার কামনা করছি।

সংবাদকর্মী ভাইদের প্রতি আমাদের আকুল আবেদন মিথ্যা, বিভ্রান্তকর সংবাদ ছাপিয়ে আমাদের দীর্ঘদিনের আশাকে ব্যর্থ না করার জন্য। উক্ত মিথ্যা সংবাদের প্রতি তীব্র নিন্দা ও জোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

সংবাদটি এলাকাবাসী, প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী:
মোহাম্মদ হাসেম
জালিয়াপালং, সোনারপাড়া।
উখিয়া-কক্সবাজার।

পাঠকের মতামত: