কক্সবাজার, রোববার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

সারা দেশে করোনায় মৃত্যুর সর্বশেষ

 

দেশে করোনায় মৃত্যু ও নতুন রোগীর সংখ্যা কমতে শুরু করেছে। তিন দিন ধরে শনাক্তের হারও ২০ শতাংশের নিচে। সেই সঙ্গে বাড়ছে সুস্থতার হারও। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় ঢাকার বাইরে ৬৩ জনের মৃত্যু খবর পাওয়া গেছে। তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ভেবে স্বাস্থ্যবিধি না মানার কোনো সুযোগ নেই বলে জানান চিকিৎসকরা।
সারা দেশে করোনায় মৃত্যুর সর্বশেষ

গত দু’মাসের তুলনায় সংক্রমণের ভয়াবহতার পারদ এখন অনেকটাই নিম্নমুখী। শনাক্তের চেয়ে সুস্থতার হার দ্বিগুণ। হাসপাতালগুলোর ভয়ংকর রূপ বদলে অনেকটা স্বস্তিতে ফিরেছে। সপ্তাহজুড়ে দৈনিক মৃত্যু দুশ’র নিচে থাকায় পরিস্থিতি সহনীয় পর্যায়ে। শয্যার সংকট কেটে গেলেও আইসিইউ নিয়ে ছুটোছুটি চলছে। যারা আক্রান্ত হচ্ছেন চরম পর্যায়ে গিয়ে ঠেকছেন।

নিচে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন জেলার করোনার চিত্র তুলে ধরা হলো-

ময়মনসিংহ
নতুন রোগী ভর্তির সংখ্যা কমলেও মৃত্যুর তালিকা ছোটো হচ্ছে না ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। কোভিড ইউনিটে ২৪ ঘণ্টায় করোনা ও উপসর্গে ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে আটজন করোনায় এবং ছয়জন উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। ২৪ ঘণ্টায় ৪৪৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৬৯ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৪০ শতাংশ।

রাজশাহী
ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে বিপর্যস্ত রাজশাহী এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। দু’মাস ধরে রোগীতে কোণঠাসা রাজশাহী মেডিকেলে কমেছে চাপ। একদিনে ৭ জন প্রাণ হারিয়েছেন। তাদের মধ্যে সংক্রমণে চারজন এবং উপসর্গে তিনজন মারা যান। গত ২৪ ঘণ্টায় রামেক হাসপাতালে ২৮১ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৭৭ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হন।

চট্টগ্রাম
একই পরিস্থিতি চট্টগ্রামেও। ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ৪ জন মারা গেছেন। একই সময়ে চট্টগ্রামের বিভিন্ন ল্যাবে দুই হাজার ৬০৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৩৩২ জনের দেহে করোনার জীবাণু শনাক্ত হয়। এদের মধ্যে নগরের ২০৮ উপজেলার ১২৪ হন।

কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়া মৃত্যুর সংখ্যা আগের মতো থাকলেও আক্রান্ত কমেছে। ২৪ ঘণ্টায় কুষ্টিয়া করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে আরও ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ৫ জনের করোনা পজিটিভ ও ৪ জনের করোনা উপসর্গ ছিল। এ ছাড়া একদিনে ২৬২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৫০ জনের দেহে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৮ শতাংশ। বর্তমানে হাসপাতালে ১০৯ জন করোনায় আক্রান্ত রোগী ও ৩৭ জন উপসর্গ নিয়ে মোট ১৪৬ জন ভর্তি রয়েছে।

খুলনা
খুলনার তিন হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (২১ আগস্ট) সকাল ৮টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। এর মধ্যে ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালে দুজন, শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে একজন ও সিটি মেডিকেলে একজন মারা গেছেন। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় খুলনা জেনারেল হাসপাতাল, গাজী মেডিকেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে কোনো রোগীর মৃত্যু হয়নি।

এ ছাড়া করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে দিনাজপুরে তিনজন, চাঁদপুরে একজন, ঠাকুরগাঁওয়ে একজন, মাগুরায় ৪ জন, বগুড়ায় ৪ জন ও সিলেটে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

পাঠকের মতামত: