কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১

উখিয়ায় ৬ খুনের ঘটনায় আরও ৪ রোহিঙ্গা গ্রেপ্তার

শাহেদ হোছাইন মুবিন, উখিয়া :

কক্সবাজার উখিয়ায় শরণার্থী ক্যাম্পের একটি মাদ্রাসায় দুষ্কৃতিকারীদের হামলায় ৬ রোহিঙ্গা খুনের ঘটনায় আরও চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ নিয়ে ঘটনায় এজাহারভুক্ত পাঁচজন সহ ১৪ আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) রাতে ও মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) ভোরে উখিয়ার বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পৃথক অভিযানে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।
গ্রেপ্তার ৬ জন হলো উখিয়ার ১০ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের হেড মাঝি (কমিউনিটি নেতা) মো. শফি উল্লাহ, ক্যাম্পটির ব্লক মাঝি ফরিদ হোসেন, জাহেদ হোসেন ও মো. হাশিম।

গত ২২ অক্টোবর ভোররাতে উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের ১৮ নম্বর ময়নারঘোনা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এইচ-৫২ ব্লকের ‘দারুল উলুম নাদওয়াতুল ওলামা আল-ইসলামিয়া মাদ্রাসায়’ দুষ্কৃতিকারীরা হামলা চালায়। এতে মাদ্রাসাটির ছাত্র-শিক্ষকসহ ৬ জন নিহত হয়। এ সময় অস্ত্র ও গুলিসহ ঘটনাস্থল থেকে মুজিবুর রহমান (১৯) নামের এক রোহিঙ্গাকে গ্রেপ্তার করে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ান (এপিবিএন)।

কক্সবাজার ৮ আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের কমান্ডিং অফসিার (পুলশি সুপার) মোহাম্মদ শিহাব কায়সার খান জানান, ৬ রোহিঙ্গা হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলমান রয়েছে। এই মামলায় ইতিপূর্বে গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- মুজিবুর রহমান (১৯), দিলদার মাবুদ ওরফে পারভেজ (৩২), মোহাম্মদ আইয়ুব (৩৭), ফেরদৌস আমিন (৪০), আব্দুল মজিদ (২৪), মোহাম্মদ আমিন (৩৫), মোহাম্মদ ইউনুস ওরফে ফয়েজ (২৫), জাফর আলম (৪৫), মোহাম্মদ জাহিদ (৪০), মোহাম্মাদ আমিন (৪৮)।
এদের মধ্যে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে অস্ত্র আইনে উখিয়া থানায় পৃথক মামলা দায়ের করেছে।

উখিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গাজী সালাহ উদ্দিন বলেন, ৬ রোহিঙ্গা খুনের ঘটনায় পুলিশ ও এপিবিএন সহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সোমবার রাতে উখিয়ার ১০ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অভিযান চালিয়ে মো. শফি উল্লাহ নামের এক জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। মঙ্গলবার উখিয়ার বিভিন্ন ক্যাম্পে পরিচালিত অভিযানে গ্রেপ্তার করা হয় ফরিদ হোসেন, জাহেদ হোসেন ও মো. হাশিম নামের আরও ৩ জনকে।

গ্রেপ্তার ৪ রোহিঙ্গাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পাঠকের মতামত: