কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১

বাংলাদেশে ডিজেলের দাম ভারতের চেয়ে কম

বাংলাদেশে ডিজেল ও কেরোসিনের দাম প্রতিবেশী দেশ ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও নেপালের তুলনায় কম।

বৈশ্বিক পেট্রোল প্রাইসেস ডটকম ওয়েবসাইটের তথ্য অনুসারে, সারাবিশ্বে পেট্রোলের গড় দাম প্রতি লিটার ১০৬ দশমিক ৩৬ টাকা। যা বাংলাদেশের দামের চেয়ে ২৬.৩৬ টাকা বেশি।

এ বিষয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘ডিজেলের দাম প্রতিবেশী দেশের চেয়ে কম এবং এ নিয়ে বিভ্রান্তির অবকাশ নেই। এই অজুহাতে অন্য পণ্যের মূল্যবৃদ্ধিরও সুযোগ নেই।’

সাড়ে পাঁচ বছরে দেশে ডিজেল ও কেরোসিনের মূল্যবৃদ্ধি হয়নি জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, প্রকৃতপক্ষে ২০১৩ সালে দেশে ডিজেলের মূল্য ছিল লিটার প্রতি ৬৮ টাকা, পরবর্তীতে ২০১৬ সালে লিটার প্রতি ৩ টাকা কমিয়ে ৬৫ টাকা করা হয়।

এদিকে দেশে ডিজেল ও কেরোসিনের খুচরা মূল্য প্রতি লিটার ৮০ টাকা, যা কলকাতায় বিক্রি হচ্ছে প্রতি লিটার ১০৪ টাকা (৯০ রুপি) এবং নয়াদিল্লিতে ১১৪ টাকা (৯৮.৪২ রুপি)।

গত ১ নভেম্বর জারি করা এক পরিসংখ্যানে দেখা যায়, পাকিস্তানে ডিজেল এবং কেরোসিন পাকিস্তানি রুপিতে লিটার প্রতি ১৪২.৬২ রুপিতে বিক্রি হচ্ছে, যেখানে শ্রীলংকায় দাম প্রতি লিটার শ্রীলংকান ১৪৪ রুপি এবং নেপালে প্রতি লিটারে ১১২.৩৯ নেপালী রুপিতে।

দেশের বাজারে তেলের কম দামের কারণে জ্বালানি পাচার হচ্ছে, যা বাংলাদেশের অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলছে। একারণে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় সরকার ডিজেল ও কেরোসিনের দাম পুন:নির্ধারণ করেছে।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসি) প্রতিদিন প্রায় ২০ কোটি টাকা ভর্তুকি দিচ্ছে, কারণ তারা প্রতি লিটার ডিজেল লিটার ১৩.০১ টাকায় এবং ফার্নেস অয়েল প্রতি লিটার ৬.২১ টাকায় বিক্রি করে, যা আন্তর্জাতিক বাজারের তুলনায় অনেক কম।

দেশে সম্প্রতি ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে বিভিন্ন মহল থেকে বিভ্রান্তি ছড়ানোর অপচেষ্টা করা হচ্ছে বলেও জানান তথ্যমন্ত্রী। সূত্র- বাসস

পাঠকের মতামত: