কক্সবাজার, শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২

১ জানুয়ারি থেকে বাস্তবায়ন না হলে কঠোর কর্মসূচি

উখিয়ায় ১০ দফা দাবিতে স্থানীয়দের মানবন্ধন

দ্রুততম সময়ের মধ্যে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের প্রতিরোধে ব্যবস্থা নেওয়া এবং রোহিঙ্গাদের তাদের নিজ দেশে প্রত্যাবাসন শুরুসহ ১০ দফা দাবি বাস্তবায়নে কক্সবাজারে উখিয়া ক্যাম্পের পাশে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার সকালে ‘সন্ত্রাসী নিপাত যাক বাঙালি জাতি মুক্তি পাক’ শ্লোগানে বালুখালী পানবাজার চত্বরে এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে এলাকাবাসী। অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি উদ্যোগে এ মানবন্ধন থেকে এ ১০ দফা দাবি জানানো হয়।

এ সময় অধিকার বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক ইঞ্জিনিয়ার রবিউল হোসাইন বলেন, ‘রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চাকরির ক্ষেত্রে ৩০ শতাংশ স্থানীয়দের অগ্রাধিকারের কথা বলা হলেও কার্যত সেখানে স্থানীয়দের উপস্থিতি মাত্র ৫ শতাংশের মতো। চাকরিদাতা এনজিও সংস্থার প্রতিনিধিদের বারবার বলার পরও তারা এ ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। বরং বিভিন্ন অযুহাত দেখিয়ে স্থানীয়দের চাকরিচ্যুত করছে।’

বক্তারা অভিযোগ করেন, রোহিঙ্গাদের কারণে স্থানীয়রা নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। বিশেষ করে রোহিঙ্গারা অপরাধে জড়িয়ে পড়ায় নিরাপত্তা ঝুঁকিতে পড়েছে স্থানীয় জনগণ।

বক্তারা ২০২২ সালের ১ জানুয়ারি থেকে তাদের দাবিগুলো বাস্তবায়ন না হলে কঠোর কর্মসূচি, গণআন্দোলন, এনজিওর অফিস-স্থাপনা ভাংচুর এবং তাদের মালামাল আনয়নে ব্যবহৃত যানবাহন অবরোধের হুমকি দেন।

মানববন্ধনে স্থানীয়দের পক্ষে উত্থাপিত অন্য দাবিগুলোর মধ্যে ছিলো- মাদক চোরাচালানসহ নানা অপরাধে জড়িত রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় আনা, আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থা ও এনজিওগুলোর ঘোষিত স্থানীয়দের জন্য প্রকল্পের ২৫%-৩০% বরাদ্দ স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার মাধ্যমে নিশ্চিত করা, ক্যাম্পের বেষ্টনির ভেতরে বসবাসরত স্থানীয়দের খাদ্য কর্মসূচির আওতাভুক্ত করা, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ব্যবহৃত ১২ লাখ অবৈধ মোবাইল সিম বন্ধ করা, চাকরি নিয়োগ প্রক্রিয়ায় সমন্বিত মনিটরিং সেল করা, রোহিঙ্গাদের স্বদেশে প্রত্যাবাসনে উৎসাহিত করতে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া, স্থানীয় সব পরিবারের জন্য জ্বালানি গ্যাস সরবরাহ করা, ক্যাম্প বেষ্টনির বাইরে রোহিঙ্গাদের অবাধ বিচরণ ও তাদের ব্যবসায়িক কার্যক্রম বন্ধ করা।

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের আগস্ট থেকে অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি নামে স্থানীয় জনগোষ্ঠীর এই সংগঠনটি স্থানীয়দের অধিকার ও দাবি দাওয়া নিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছে।

পাঠকের মতামত: