কক্সবাজার, রোববার, ২২ নভেম্বর ২০২০

অবশেষে নাইক্ষ্যংছড়িতে দ্বিতীয় করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত, কর্তৃপক্ষের অবহেলাকে দায়ী করেছেন অনেকে

আমিনুল ইসলাম, নাইক্ষ্যংছড়ি(বান্দরবান)::

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে দ্বিতীয় করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে গতকাল।বিষয় টি নিশ্চিত করা হলে ও রোগীর বাড়ি এবং আক্রন্ত ব্যক্তিকে কোন টি তা নিয়ে ধুম্রজাল তৈরী হয়।
হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসে গত সোমবার (২৭এপ্রিল) করোনা পজেটিভ হওয়া আলম আরা নামে নারী বলছেন তিনি করোনা পরীক্ষা করেননি এবং নমুনাও কেউ সংগ্রহ করেননি।স্তানিয় জনপ্রতিনিধি সূত্রে জানা যায় বিকালে করোনা পজিটিভ খবর পাওয়া গেলে উপজেলা প্রশাসন থেকে জনপ্রতিনিধি দের মাধ্যমেবাড়ি লগড়াউনের নিদর্শেনা দিতে গেল তখন নামে উল্লেখিত মহিলা বলেন আমার কোন নমুনা নেওয়া হয় নি।

এই নিয়ে পুরো নাইক্ষ্যংছড়ি জুড়ে তোলপাড় তৈরী হয়েছে। এতে রোগী সনাক্তের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে দ্বিধাদ্বন্ধে পড়েছিল সংশ্লিষ্টরা।আর এতে
তৈরী হয় ধুম্রজাল। আলম আরার বিষয়ে এলাকায় খোঁজ নিতে গিয়ে জানা যায় তিনি সাম্প্রতিক সময়ে হাসপাতালে যাননি এবং কেউ তার নমুনাও সংগ্রহ করেননি।

করোনা আক্রান্তের তালিকায় কিভাবে তার নাম এলো তিনি জানেনা। ঘটনাস্থল থেকে নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি এই প্রতিবেদককে জানান- রবিবার হাসপাতালে জান্নাতুল হাবিবা নামে এক নারী চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলেন। হাসপাতালে তিনি নিজের প্রকৃত নামের পরিবর্তে আলম আরা এবং মোবাইল নাম্বারটি তার নিজের স্বামীর লিপিবদ্ধ করেন বলে ধারনা করা হচ্ছে।
পরে স্তানিয় জনপ্রতিনিধি দের সহায়তায় হাসপাতালের নমুনা সংগ্রহ কারি নার্সের সাক্ষাতে তাকে চিহ্নিত করা কয।সূত্রে জানাজায় আক্রন্ত মহিলা পরে স্বীকার করেন। তার শারিরীক অবস্থা ও ভালো তার বয়স -(২৭)বর্তমানে আক্রান্তের বাড়ি সহ আসপাশের বেশ কয়েক টি বাড়ি লগড়াউনা করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান আবু জাফর মো: ছলিম সাংবাদিক দের জানান- করোনা আক্রান্ত হয়েছে ঠিক। তবে আক্রান্ত ব্যাক্তি নিজের নাম গোপন করার কারনে এই সমস্যা তৈরী হয়েছে। এখানে হাসপাতালের কারো ব্যর্থনা নেই।

পাঠকের মতামত: