কক্সবাজার, সোমবার, ২১ জুন ২০২১

ঈদ জামাতের জন্য নাইক্ষ্যংছড়ি থানা ওসির নির্দেশনা ও  আগাম শুভেচ্ছা

আমিনুল ইসলাম, নাইক্ষ্যংছড়ি::
এবারের ঈদের আয়োজনে রয়েছে বাড়তি সতর্কতা মুলুক নানা নির্দেশনা, করবোনা ভাইরাস সংক্রমণ থেকে , মানুষের জীবন বাঁচাতে আমাদের সকলের এই নিয়ম মেনে সকলকে ঈদ উদজাপনের আহবান জানান নাইক্ষ্যংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন, এছাড়া উপজেলা বাসিকে আগাম ঈদের শুভেচ্ছা জানান।   করোনার  কারণে ঈদগাহ বা উন্মুক্ত স্থানে পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজের জামাত অনুষ্ঠিত হবে না। এ ক্ষেত্রে মুসল্লিদের জীবনের ঝুঁকি বিবেচনা করে এ বছর ঈদের নামাজের জামাত খোলা জায়গার পরিবর্তে নিকটস্থ মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে। প্রয়োজনে একই মসজিদে একাধিক জামাতের ব্যবস্থা করা যেতে পারে।
নিচের নির্দেশনাসমূহ মেনে চলার জন্য অনুরোধ করা হলো।
সুপ্রিয়,
নাইক্ষ্যংছড়ি বাসী, আসসালামু আলাইকুম। সকলের প্রতি ঈদুল ফিতরের আগাম শুভেচ্ছা। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধকল্পে বর্ণিত স্বাস্থ্যবিধি সমূহ মেনে চলার জন্য সকলকে অনুরোধ করা যাচ্ছে।

১.করোনা ভাইরাসের সংক্রামন রোধকল্পে  মুসল্লিদের জীবনের ঝুঁকি বিবেচনায় উপজেলা প্রশাসন কর্তৃৃক এ বছর ঈদগাহের পরিবর্তে নিকটস্ত মসজিদে ঈদের নামাজ আদায়ের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।
২.মসজিদে মুসল্লিদের সকলের মাস্ক পরিধান করতে হবে।
৩.নামাজ আদায়ের সময় সামাজিক দূরস্ত বজায় রেখে দাঁড়াতে হবে। প্রয়োজনে একই মসজিদে ভিন্ন সময়ে ২/৩ টি জামাত আয়োজন করা যেতে পারে।।
৪.সম্ভব হলে প্রত্যেকে নিজ নিজ জায়নামাজ সঙ্গে নিয়ে যাবেন।
৫.ঈদের নামাজের পূর্বে মসজিদের ফ্লোর সাবান পানি দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে।
৬.নামাজ শেষে কোলাকোলি ও হ্যান্ডশেক করা যাবে না

এ ব্যাপারে আপনাদের সার্বিক সহযোগীতা একান্তভাবে কামনা করা যাচ্ছে।
মহামারি করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঈদুল ফিতর উদযাপন করতে নাইক্ষ্যংছড়ি থানা’র অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: আনোয়ার হোসেন ধর্মপ্রাণ নাগরিকদের অনুরোধ জানান।

পাঠকের মতামত: