কক্সবাজার, শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

উখিয়ায় এএসপি পরিচয়ে প্রতারণা করতে এসে ধরা পড়লো ৩ যুবক

আবদুল্লাহ আল আজিজ::

কক্সবাজারের উখিয়ায় এএসপি পরিচয়ে প্রতারণাকালে দুই সহযোগীসহ ৩ জনকে আটক করেছে ৮ এপিবিএনের সদস্যরা।

বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) বিকেল ৫ টার দিকে উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্প-০৮ ইষ্ট এর সিআইসি অফিসের সামনে থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতদের মধ্যে আহসান ইমাম (৩৩) দীর্ঘদিন যাবৎ নিজেকে এডিসি, কখনও এএসপি হিসেবে পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে। তারই ধারাবাহিকতায় নিজেকে এএসপি পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করতে গিয়ে ধরা পড়ে যায়।
সে গোপালগঞ্জ সদরের বরফা পশ্চিম শুকতাইল এলাকার মোঃ শাহজাহান মোল্লার ছেলে। আর তার দুই সহযোগী হলেন, পটুয়াখালী গলাচিপার বুনিয়া এলাকার আব্দুল হক শিকদারের ছেলে গাড়ির ড্রাইভার মোঃ মিন্টু (৩০) ও গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের মহিষমারি এলাকার মো: মনোয়ার হোসেনের ছেলে মো: মানসুর রহমান (২৯)।

সূত্রে জানা যায়, বালুখালী পানবাজার পুলিশ ক্যাম্প-৯ এর ক্যাম্প-৮ ইস্ট এর চেকপোস্টে সিগন্যাল অমান্য করে সামনে এবং পেছনে “পুলিশ” স্টীকারযুক্ত একটি নোহা গাড়ি ক্যাম্পের ভেতরে গিয়ে সিআইসি ৮-ইস্ট এর অফিসের সামনে গিয়ে দাঁড়ায়।

এ সময় তাদের আচরণবিধি সন্দেহজনক হওয়ায় পরিচয় জানতে চাইলে গাড়িতে থাকা একজন নিজেকে এএসপি পিয়াল হিসেবে পরিচয় দেন ও নিজেকে ৩৪ তম বিসিএস পুলিশের একজন সদস্য বলে দাবী করেন এবং পুলিশ হেডকোয়ার্টার, মিন্টো রোড, ঢাকায় পোস্টিং বলে জানায়।

পরে তাদের কথাবার্তায় সন্দেহে বাড়তে থাকলে ক্যাম্প কমান্ডারকে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি তাদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন। একপর্যায়ে তারা পুলিশের সদস্য নয় বলে স্বীকার করে। পরে তাদের আটক করা হয় এবং গাড়ীটি জব্দ করা হয়।

এ ব্যাপারে আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে উখিয়া থানায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছেন ৮ এপিবিএন।

পাঠকের মতামত: