কক্সবাজার, বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১

ঘূর্ণিঝড় ইয়াস: রোহিঙ্গা ক্যাম্পে প্রস্তুত ৫ হাজার স্বেচ্ছাসেবক

সুজাউদ্দিন রুবেল::

ঘূর্ণিঝড় ইয়াস মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুত গ্রহণ করেছে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশন। ইতিমধ্যে ৫ হাজারের বেশি স্বেচ্ছাসেবককে প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৫ মে) বিকেলে এ তথ্য জানিয়েছেন অতিরিক্ত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. সামছু-দ্দৌজা।
তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড় ইয়াস মোকাবিলায় কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফে ৩৪টি আশ্রয়শিবিরে ব্যাপক প্রস্তুত গ্রহণ করা হয়েছে। এই দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রায় ৫ হাজারের বেশি স্বেচ্ছাসেবককে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতির কারণে ক্যাম্পের অভ্যন্তরে এক হাজারের বেশি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার কার্যালয় বন্ধ রয়েছে। এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার কার্যালয়গুলোকে আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হবে। এছাড়া ক্যাম্পের ভেতরে বেশ কিছু খোলা মাঠ প্রস্তুত রাখা হয়েছে, সেখানে ঘূর্ণিঝড়ে গৃহহীন এবং পাহাড়ের ঢালুতে ঝুঁকিতে থাকা পরিবারগুলোকে সাময়িকভাবে সরিয়ে নেওয়া হবে।’

অতিরিক্ত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. সামছু-দ্দৌজা আরও বলেন, ‘শুকনো খাবারের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে। যা ডব্লিউএফ সরবরাহ করবে। সুতরাং, সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস মোকাবিলায়।’
আর ক্যাম্পের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ১৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অধিনায়ক মো. তারিকুল ইসলাম বলেন, ক্যাম্পে দুর্যোগ মোকাবিলার বিষয়ে রোহিঙ্গা তরুণ ও যুবকদের সচেতন করা হচ্ছে। ক্যাম্পের বিভিন্ন গলিতে গিয়ে পুলিশ রোহিঙ্গাদের দুর্যোগ বিষয়ে সচেতন করছে। ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানলে স্বেচ্ছাসেবকরা যাতে ক্যাম্পের ভেতর থেকে রোহিঙ্গা নারী-শিশুদের দ্রুত আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে আসেন, সে বিষয়ে বলা হয়েছে।

পাঠকের মতামত: