কক্সবাজার, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১

বাঁশখালীতে ইয়াসের প্রভাব: বেড়িবাঁধ ভেঙে লোকালয়ে জোয়ারের পানি

চট্টগ্রামের বাঁশখালীর উপকূলীয় এলাকায় ঘুর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে সাগর উত্তাল হয়ে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৭/৮ফুট উপরে উঠে গেছে। এতে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পেয়ে উপকূলীয় বেঁড়িবাধ ভেঙে পূর্ণিমার উত্তাল জোয়ারের পানি লোকালয়ে প্রবেশ করেছে।

বুধবার (২৬ মে) সকাল ১০টার দিকে উপকূলীয় এলাকায় জোয়ারের পানি প্রবেশ করায় ছনুয়ার হাবাখালী, ছনুয়ার টেক ও শেলবন, শেখেরখীলের গুইল্যাখালী, শীলকূপের মনকিচর, পশ্চিম সাধনপুর, গন্ডামারা আলেকদিয়া ও খানখানাবাদের প্রেমাশিয়ায় মানুষের মাঝে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ছনুয়া ইউনিয়নের হাবাখালী, খরুঘাট, ছনুয়ার টেক ও শেলবন, শেখেরখীল ইউনিয়নের গুইল্যাখালী ও নোয়া পাড়া, শীলকূপ ইউনিয়নের মনকিচর, সাধনপুর ইউনিয়নের পশ্চিম সাধনপুর রাতারকুল, গন্ডামারা ইউনিয়নের পশ্চিম বড়ঘোনা ও আলেকদিয়া এবং খানখানাবাদ ইউনিয়নের প্রেমাশিয়ায় ৩০ চেইন বেঁড়িবাধ অরক্ষিত থাকায় ইয়াসের প্রভাবে পূর্ণিমার জোয়ারে পানির লোকালয়ে প্রবাহিত হয়েছে। এতে অনেক পরিবার বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় গ্রহণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন ইউপি সদস্য হাফেজ আহমদ।

তিনি জানান, বেড়িবাঁধ না থাকায় প্রেমাশিয়া অংশে সাগরের জোয়ারের পানি ৭/৮ফুট বৃদ্ধি পেয়ে হু হু করে লোকালয়ে প্রবেশ করছে।

সাধনপুর ইউনিয়নের সমাজসেবক কে. এম সালাউদ্দীন কামাল বলেন, রাতারকুল ও পশ্চিম সাধনপুর এলাকায় বেঁড়িবাধ ভাঙা অংশ দিয়ে জোয়ারের পানি প্রবেশ করেছে। এই সময় অনেক পরিবারের ঘরের ভিতর সাগরের পানি ঢুকে পড়ে।

উপকূলীয় ছনুয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ বলেন, ছনুয়া ইউনিয়নের ৪নম্বর ওয়ার্ডের ছনুয়ার টেক, খরুঘাট, খাস পাড়া, ৬ নম্বর ওয়ার্ডের হাবাখালী, ১ নম্বর ওয়ার্ডের শেলবন এলাকায় ৫০ চেইন অংশ ভাঙা অবস্থায় রয়েছে। এই অংশ দিয়ে বেড়িবাঁধ উপছে এবং ভাঙা অংশ দিয়ে জোয়ারের পানি লোকালয়ে প্রবেশ করেছে। জরুরি ভিত্তিতে বাঁধ না দিলে ৪০ হাজার মানুষের বাড়িঘর তলিয়ে যাবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী প্রকাশন চাকমা জানান, পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা জোয়ারের পানি ঠেকানোর জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। সকলে মাঠে রয়েছেন। ছনুয়া, খানখানাবাদ, গন্ডামারা ও শেখেরখীল ইউনিয়নের কিছু কিছু এলাকায় জোয়ারের পানি প্রবেশ করছে। এই বিষয়টি উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

পাঠকের মতামত: