কক্সবাজার, শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

বিশ্বকাপে সবচেয়ে তরুণ দল বাংলাদেশ

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দিয়ে আরেকটি নতুন অধ্যায়ের সূচনা করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ, যে অধ্যায়ে সাফল্য অনেকটাই নির্ভর করছে তরুণদের ওপর। দলে তরুণদের আধিক্য এতটাই যে, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের পরে বয়সে সবচেয়ে সিনিয়র ক্রিকেটার সৌম্য সরকার।

সৌম্যর বয়স ২৮ বছর। বিশ্বকাপের বাকি দলগুলোর তুলনায় গড় বয়সে সবচেয়ে পিছিয়ে বাংলাদেশ। বাছাইপর্বে বয়সের হিসাবে ‘বি’ গ্রুপে থাকা স্কটল্যান্ড, পাপুয়া নিউগিনি ও ওমানের চেয়ে পিছিয়ে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের গড় বয়স যেখানে ২৬.৮৭ বছর, সেখানে ‘বি’ গ্রুপে থাকা সহ-আয়োজক ওমানের ৩২.৫৩। শুধু ‘বি’ গ্রুপেই নয়, বয়সে বিশ্বকাপের সবচেয়ে অভিজ্ঞ দল ওমান। ‘বি’ গ্রুপের বাকি দুটি দলের একটি স্কটল্যান্ড। তাদের ক্রিকেটারদের গড় বয়স প্রায় ৩০ বছর আর পাপুয়া নিউগিনির প্রায় ২৮ বছর।

বাংলাদেশ দলে আছেন সর্বশেষ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী দুই ক্রিকেটার। ২০ বছরের শরীফুল ইসলামের সঙ্গে থাকছেন ২১ বছর বয়সী শামীম পাটোয়ারী। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পাওয়া মোহাম্মদ নাঈম ও আফিফের বয়স ২৩ বছরের নিচে। বিশ্বকাপ দলে জায়গা পাওয়া আরেক অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের বয়সও ২৫ পেরোয়নি। লিটন দাস, মেহেদী হাসান, নাসুম আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান ও তাসকিন আহমেদের বয়স ২৬ বছর। দলে তিন খেলোয়াড়ের বয়স ৩০ বছর ছাড়িয়েছে–সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ।

বাংলাদেশের চেয়ে বয়সের গড়ে সামান্য এগিয়ে শ্রীলঙ্কা ও নামিবিয়া। দুই দলের খেলোয়াড়দের বয়সের গড় ২৭ বছরের একটু বেশি। আর বয়সের গড়ে সবচেয়ে এগিয়ে থাকা ওমানের পরে আছে ইংল্যান্ড। ইংলিশ ক্রিকেটারদের গড় বয়স ৩১.২৬ বছর। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলও বেশ অভিজ্ঞ। দলে থাকা গেইল-ব্রাভোদের গড় বয়স ৩১.১৩ বছর। অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটারদের গড় বয়সও ৩০ বছরের কিছু বেশি। বয়সে ভারত ও নিউজিল্যান্ড অবশ্য অস্ট্রেলিয়া ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের তুলনায় কিছুটা পিছিয়ে। এ দুই দলের ক্রিকেটারদের গড় বয়স ২৯ বছর। বিশ্বকাপের বাকি দলগুলোর মধ্যে পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের গড় বয়স ২৭.৩৩ বছর এবং দক্ষিণ আফ্রিকার ২৯ বছরের বেশি।

পাঠকের মতামত: